বিএনপি বেপরোয়া চালকের মতো হয়ে গেছে: ওবায়দুল কাদের

এম.এ আজিজ রাসেল
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “খেলা হবে। কোয়ার্টার ফাইনালে গোল দিয়েছি, সেমিফাইনালেও গোল দিবে, ফাইনালেও জিতবো। আর ফাইনাল হলো আগামী জাতীয় নির্বাচন। বর্তমানে বিএনপি পাগলে হয়ে গেছে। ১০ ডিসেম্বর সুপার ফ্লপ। এখন বেপরোয়া চালকের মতো হয়ে গেছে তারা। কখন এক্সিডেন্ট করে বলা যায় না। ডিজিটাল বাংলাদেশ আজ বাস্তবায়ন। ২০২৪০ সাল পর্যন্ত এখন টার্গেট স্মার্ট বাংলাদেশ।”

মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) দুপুরে আন্তর্জাতিক শেখ কামাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে উদ্বোধনী বক্তব্যে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন এমপি বলেন, “বিএনপিকে যারা চিনে না, তারা কবরস্থানও চিনেনা। তাঁদের আমলে আওয়ামী লীগ কোন কর্মসূচি পালন করতে পারেনি। কক্সবাজার পাবলিক হলে আওয়ামী লীগের একটি সভায় হামলা করে বিএনপি। ওইসময় দরজা বন্ধ করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের পেটানো হয়। মানুষ তা ভুলেনি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না। তাই এই দেশে এখন শান্তির সুবাতাস বইছে। শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় কক্সবাজারসহ বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।”

সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, “শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কক্সবাজারসহ পুরো দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু একাত্তরের রাজাকার জামাত ও পচাত্তরের রাজাকার বিএনপি দেশকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্রে করে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকে, কেউ নেই পরাস্ত করতে পারে। বিএনপির সাথে জনগণ নেই। বিদেশীদের দোয়ায় তাঁরা ক্ষমতায় আসতে চাই। কিন্তু তাদের সেই পরিকল্পনা কখনো বাস্তবায়ন হবে না। তাই ভেদাভেদ ও ছোটখাটো দ্বন্দ্ব ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। যাতে ২০২৪ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আবারও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারে।”

এতে বিশেষ বক্তার বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী এমপি, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, দপ্তর সম্পাদক ব্যরিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহফুজুল হায়দার রোটন।

জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে আরও
বক্তব্য রাখেন

সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল, আশেক উল্লাহ রফিক, জাফর আলম, কানিজ ফাতেমা আহমেদ মোস্তাক, সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদি।

সঞ্চালনায় সাথে ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজিবুল ইসলাম ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক এম এ মনজুর।

এসময় জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিল পর্বে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল উল আলম হানিফ কক্সাবাজার জেলা আওয়ামী লীগের পুনরায় সভাপতি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা দেন।