ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার শহরের চিহ্নিত মাদক কারবারীদের বাসা বাড়ীতে দিনভর সাঁড়াশি অভিযান চালিয়েছে জেলা মাদকদ্রব্য অফিসের গঠিত বিশেষ টাস্কফোর্স।
শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) শহরের বড় বাজার, মাছবাজার, রাখাইনপাড়া, বিমানবন্দর ও লিংকরোড এলাকায় অভিযান চালানো হয়।
অভিযানের খবরে শীর্ষস্থানীয় মাদক কারবারীরা লাপাত্তা হয়ে যায়। তবে, তিনজনকে হাতেনাতে ইয়াবাসহ আটক করা হয়। সেখানে একজন কক্সবাজার বিমানবন্দর গেইট, অপর দুইজনকে লিংকরোড় থেকে আটক করা হয়।
শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরতীর লিংক রোড়স্থ বনবিভাগের চেকপোস্টে টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কে যাত্রীবাহী বাস সরাসরি স্পেশাল সার্ভিস (কক্সবাজার-জ-১১-০১৭৮) তল্লাসী করে দুইজনকে আটক করা হয়।
তারা হলো-রাজবাড়ী জেলার রাজবাড়ী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের সজ্জনকান্দা এলাকার বাসিন্দা মোশারফ হোছনের ছেলে মো. জুয়েল মৃধা (২৬) এবং একই এলাকার কাজল মন্ডলের ছেলে মো. মিন্টু মন্ডল। তাদের কাছ থেকে ৯০০ টি ইয়াবা পাওয়া যায় বলে মাদকদ্রব্য অফিস দাবী করেছে।
একই দিন সন্ধ্যায় শহরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী বড় বাজার পূর্ব রাখাইনপাড়া এলাকার আবু রাখাইন, পশ্চিম মাছবাজার এলাকার বিংচা রাখাইন ও আউশা রাখাইনের বাড়িতে অভিযান চালায় রেইডিং টিম। তবে পালিয়ে যাওয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের কাউকে আটক করতে পারেনি অভিযানকারীরা।
বিকাল ৫টার দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দর গেইট থেকে ১৪০০ ইয়াবাসহ নবী হোছন মনিয়া (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। সে টেকনাফের হ্নীলা রঙ্গিখালী এলাকার আবু বক্করের ছেলে।
জেলা মাদকদ্রব্য অফিসের পরিদর্শক আবদুল মালেক তালুকদারের নেতৃত্বাধীন অভিযানে উপ-পরিদর্শক শেখ আবুল কাশেম, সিপাই মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, মো. হুমায়ুন কবিরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
জেলা মাদকদ্রব্য অফিসের সহকারী পরিচালক সোমেন মন্ডল বলেন, তালিকাভুক্ত ৫৭ শীর্ষ মাদক কারবারীর বাসাবাড়ী ও আস্তানায় অভিযান চালানো হচ্ছে। টাস্কফোর্সের অভিযানে আটক মাদক কারবারীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে ব্যবস্থা নিয়ে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
তিনি বলেন, কোন মাদক ব্যবসায়ীকে রেহায় দেয়া হবেনা। সম্ভাব্য সব স্থানে অভিযান চালানো হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •