cbn  

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু,নাইক্ষ্যংছড়ি :
বান্দবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা মিলনায়তনে শনিবার (২৭ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশের উদ্যোগে সদর ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন মামুন শিমুলের সঞ্চালনায়, ছেলে ধরা গুজব আতঙ্ক রোধে সচেতনতামূলক প্রচারণা উপলক্ষে টমটম, সিএনজি, অটো রিক্সা,মটর বাইক শ্রমিক ও কেন্দ্রীয় বাজার সমিতির সদস্য-নেতৃবৃন্দের সাথে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এতে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের সদস্য ও নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে ছেলে ধরা গুজবে কান না দিতে বলেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ওসি (তদন্ত) জায়েদ নূর,এস,আই রাজিব হাসান,এ,এস,আই আক্তার হোসেন,কেন্দ্রীয় বাজার সমিতির সভাপতি আব্দুল গফুর, টমটম অটো সিএনজি ও রিক্সা শ্রমিক নেতা আব্দু রহমান,সেলিম উদ্দীন,ছাইহ্লা চাক,এনায়েত রহমান প্রমূখ।
এ সসভায় সদর ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী বলেন, সাম্প্রতিক পদ্মা সেতুর জন্য মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে এমন গুজব ছড়িয়ে এক শ্রেণীর মানুষ দেশের পরিস্থিতিকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। এর ফলে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে এবং অনেকে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন, অনেকেই আইন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছেন। বাস্তবিক অর্থে ছেলে ধরা বিষয়টি সম্পূর্ণরূপে একটি গুজব, তাই ছেলে ধরা গুজবে কেউ কান দিবেন না। কাউকে ছেলে ধরা বলে সন্দেহ হলে অাইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে তাকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করবেন।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনর্চাজ তার বক্তব্যে বলেন, ছেলে ধরা গুজবে কেউ কান দিবেন না। দেশের স্বাভাবিক পরিস্থিতিকে অস্থীতিশীল করতে একশ্রেণীর মানুষ এই গুজব ছড়াচ্ছে। গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলে ধরা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। কাউকে ছেলে ধরা বলে সন্দেহ হলে আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে তাকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করবেন এবং পুলিশকে বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে জানাবেন।

এছাড়াও সচেতনতা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ধরণের কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের শ্রমিকদের ব্রিফিং, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মসূচী পালন, সচেতনতামূলক প্রচারণাপত্র (লিফলেট) বিতরন, থানা এলাকায় মাইকিং করা, মসজিদের ইমামদের মাধ্যমে জন সচেতনতা তৈরী করা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গন্যমান্য ব্যক্তিদের সচেতনতামূলক কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করা ইত্যাদি।

এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি বিতরন করেন এবং গুজব বিরোধী বিষয়কে ব্যপকভাবে প্রচার করার জন্য উপস্থিত সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পেশার নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •