সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ
কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর ইউনিয়ন আ’লীগের এক সভা সহসভাপতি ছৈয়দ আলমের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহজাহান চৌধুরীর সঞ্চালনায় শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ওই ইউনিয়নের বটতলাস্থ একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় সদর উপজেলা আ’লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শরীফ কোম্পানী, সহসভাপতি ও সাবেক মেম্বার ছৈয়দ আলম, সহসভাপতি ফরিদুল আলম দাদা, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদু শুক্কুর এমইউপি, দপ্তর সম্পাদক সাহাব উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক জাফর আলম, নির্বাহী সদস্য আলী আকবর সওদাগর, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আবদুর রশীদ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হোছাইন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ মেহের আলী, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আমির হোছাইন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ডাঃ নুরুল হুদা, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক দুদু, রেজাউল এবং মোঃ শফি বক্তব্য রাখেন। সাধারন সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে বলেন, গত ৮ এপ্রিল অত্র ইউনিটের সহসভাপতি ছৈয়দ আলম সাবেক এমইউপিকে বিএনপি কর্মী মোহাম্মদ আলী মারধর করেন। বিষয়টির ন্যায্য প্রতিকার পেতে নির্যাতিত ছৈয়দ আলমের পক্ষ থেকে ঈদগাঁও থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এজাহারটিকে মামলা হিসেবে গ্রহন না করে এস আই রেজাউলকে তদন্তের জন্য দায়িত্ব অর্পণ করেন। এ ঘটনায় স্থানীয় আ’লীগ নেতাকর্মীগন সন্তুষ্ট হতে না পেরে আ’লীগের উর্ধ্বতন মহলে বিষয়টি অবহিতকরনের জন্য সাধারন সম্পাদক শাহাজাহান চৌধুরী ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি সম্পাদকদের নিকট হতে ইসলাপুর আ’লীগের প্যাডে ৮ জন সভাপতি/ সম্পাদকের স্বাক্ষর সংগ্রহ করেন। ওই স্বাক্ষর সংগ্রহকে কেন্দ্র করে ওইদিন সন্ধ্যায় ইসলামপুর ইউনিয়ন আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনজুর দাদা তাঁর অফিসে ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি/ সম্পাদকদের ডেকে তাকে অব্যাহতি প্রদানের জন্য এসব স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে মর্মে নেতাকর্মীদের মাঝে ভুল ব্যাখ্যা প্রদান করেন। যা আদৌ সত্য নয় বলে তিনি দাবী করেন। তিনি আরো জানান, ইসলামপুর ইউনিয়ন আ’লীগের বর্তমান কমিটিতে হাছন আলী নামে কেউ নাই বা ছিলনা। তা সত্বেও হঠাৎ করে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনজুর দাদা ভূঁয়া প্রত্যয়ন প্রদানের মাধ্যমে তাঁকে সহসভাপতি হিসেবে উল্লেখ করেছেন যা খুবই দুঃখজনক। এসব সমস্যা সমাধানকল্পে তিনি আ’লীগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
এদিকে সদর উপজেলা আ’লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শরীফ কোম্পানী তাঁর বক্তব্যে সহসভাপতি হাছন আলীকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধ নিরসনে সদর উপজেলা আ’লীগ সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। সভায় বিভিন্ন ওয়ার্ড আ’লীগের কর্মীরাও যোগ দেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •