সেন্টমার্টিনদ্বীপ প্রাইমারী স্কুলে ১ শিশুকে মারধর

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ :

সেন্টমার্টিনদ্বীপে আবারও শিক্ষকের হাতে ১ শিশু ছাত্র প্রহৃত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মারধরের শিকার শিশুটি হচ্ছে সেন্টমার্টিনদ্বীপ বাজারপাড়া ৪নং ওয়ার্ড আবদুল কাদেরের পুত্র মোঃ রিফাত হাসান (৬)। মারধরের শিকার শিশু রিফাত সেন্টমার্টিনদ্বীপ সরকারী প্রাইমারী স্কুলের শিশু শ্রেনীর ছাত্র বলে জানা গেছে। ১০ ডিসেম্বর দুপুর ১২টার দিকে সেন্টমার্টিনদ্বীপ সরকারী প্রাইমারী স্কুলে এ ঘটনা ঘটে। আহত ছাত্রকে সেন্টমার্টিনদ্বীপে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহত ছাত্র মোঃ রিফাত হাসানের বড় ভাই মোহাম্মদুল্লাহ রাত ১০টায় ফোনে বলেন ‘আমার ছোট ভাইকে কোন কারণ ছাড়াই স্কুলের সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম বেদম মারধর করেন। এতে মোঃ রিফাত হাসান গুরুতর আহত হয়। বর্তমানে তাকে সেন্টমার্টিনদ্বীপে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। জাহাজ চলাচল বন্দ থাকায় টেকনাফে আনা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ এবং টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করা হয়েছে। গুরুতর আহত হওয়ায় আমার ভাই ১১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া বার্ষিক পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেনা। বিষয়টি সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ, টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে অবহিত করায় ক্ষীপ্ত হয়ে মোবাইল ফোনে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। তা আমি রেকর্ড করে রেখেছি’।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিক ফোন রিসিভ না করায় এব্যাপারে তথ্য নেয়া সম্ভব হয়নি। সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ এবং টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ এমদাদ হোসেন চৌধুরী অভিভাবক কতৃক মৌখিক অভিযোগ পেয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন।

জানা যায়, এর আগেও স্কুলে কর্মরত মানসিক ভারসাম্যহীন সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম কতৃক এধরণের আরও একাধিক বার ঘটনা ঘটিয়েছিল। সমাপণী পরিক্ষার কয়েক দিন আগে উক্ত শিক্ষক অস্বাভাবিক আচরন শুরু করেন। এমননি স্কুলের জানালার কাঁচ ভেঙ্গে ফেলে। এতে বাধা দিলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিককেও মারধর করে। তাছাড়া ১৬ নভেম্বর বিকালে উক্ত মানসিক ভারসাম্যহীন সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের অনুপস্থিতিতে খবর দিয়ে পরিক্ষার জন্য অতিরিক্ত ক্লাস করার কথা বলে স্কুলে নিয়ে আসেন। সন্ধ্যায় ছুটির আগে হঠাৎ কোন কারণ ছাড়াই বেপরোয়াভাবে ৪ জন ছাত্রীকে মারধর করেন। শিক্ষার্থীদের শোর-চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মারধরের শিকার পরিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। উক্ত শিক্ষক গত ২ বছর আগেও একইভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে বিভিন্ন ঘটনা ঘটিয়েছিলেন।

টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ এমদাদ হোসেন চৌধুরী বলেন ‘মৌখিকভাবে অভিযোগ পেয়েছি। এর আগে আরও ৪ জন ছাত্রী সমাপণী পরিক্ষার্থীদের মারধর করার লিখিত অভিযোগ বর্তমানে তদন্তাধীন রয়েছে। সম্ভাব্য বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অভিযুক্ত শিক্ষক নুরুল আলমকে ১১ ডিসেম্বর সেন্টমার্টিনদ্বীপ থেকে টেকনাফে চলে আসতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে’।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

স্থায়ী বসবাসের সুযোগ দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

চকরিয়ায় একদিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে ১৩ শিশু আহত

চট্টগ্রামের তিন ছিনতাইকারী আটক

শাহীন চৌধুরী নৌকার প্রার্থী মনোনীত হওয়ায় উখিয়ায় ছাত্রলীগের অানন্দ মিছিল

টেকনাফ বিজিবির অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ৩

শাহিনা চৌধুরীকে মনোনয়ন দেয়ায় হ্নীলায় আনন্দ মিছিল ও পথসভা অনুষ্ঠিত

কলাতলীর সমাজসেবক শফি উল্লাহর পিতার ইন্তেকাল, রাত দশটায় জানাজা

এই ছবি আসলে কার?

মনোনয়ন পাবে না বিএনপির শোডাউনকারীরা

চূড়ান্ত মনোনয়ন জোটের সঙ্গে বসে : ফখরুল

বৃহস্পতিবার এড. আহামদ হোসেন স্মরণে ফুলকোর্ট রেভারেন্স

কক্সবাজার সরকারি কলেজে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (স:) পালিত

জিএম রহিমুল্লাহর মৃত্যুতে ছাত্রশিবিরের শোক 

এলাকাবাসীকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে জননেতা জিএম রহিমুল্লাহ

চকরিয়ায় পিকনিকের বাস উল্টে খাদে পড়ে গার্মেন্টস কর্মী নিহত,আহত অর্ধশত

সাতকানিয়ায় নির্বাচনী প্রচার সামগ্রী অপসারণ

বাংলাদেশি স্বামী পেয়ে সুখী মালয়েশীয় নারীরা

টেকনাফে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন নিহত

জিএম রহিমুল্লাহর প্রথম জানাযা সম্পন্ন, শোকাহত জনতার ঢল

সৌদিআরবে জিএম রহিমুল্লাহর গায়েবানা জানাজা