সেন্টমার্টিনদ্বীপ প্রাইমারী স্কুলে ১ শিশুকে মারধর

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ :

সেন্টমার্টিনদ্বীপে আবারও শিক্ষকের হাতে ১ শিশু ছাত্র প্রহৃত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মারধরের শিকার শিশুটি হচ্ছে সেন্টমার্টিনদ্বীপ বাজারপাড়া ৪নং ওয়ার্ড আবদুল কাদেরের পুত্র মোঃ রিফাত হাসান (৬)। মারধরের শিকার শিশু রিফাত সেন্টমার্টিনদ্বীপ সরকারী প্রাইমারী স্কুলের শিশু শ্রেনীর ছাত্র বলে জানা গেছে। ১০ ডিসেম্বর দুপুর ১২টার দিকে সেন্টমার্টিনদ্বীপ সরকারী প্রাইমারী স্কুলে এ ঘটনা ঘটে। আহত ছাত্রকে সেন্টমার্টিনদ্বীপে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহত ছাত্র মোঃ রিফাত হাসানের বড় ভাই মোহাম্মদুল্লাহ রাত ১০টায় ফোনে বলেন ‘আমার ছোট ভাইকে কোন কারণ ছাড়াই স্কুলের সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম বেদম মারধর করেন। এতে মোঃ রিফাত হাসান গুরুতর আহত হয়। বর্তমানে তাকে সেন্টমার্টিনদ্বীপে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। জাহাজ চলাচল বন্দ থাকায় টেকনাফে আনা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ এবং টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করা হয়েছে। গুরুতর আহত হওয়ায় আমার ভাই ১১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া বার্ষিক পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেনা। বিষয়টি সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ, টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে অবহিত করায় ক্ষীপ্ত হয়ে মোবাইল ফোনে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। তা আমি রেকর্ড করে রেখেছি’।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিক ফোন রিসিভ না করায় এব্যাপারে তথ্য নেয়া সম্ভব হয়নি। সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর আহমদ এবং টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ এমদাদ হোসেন চৌধুরী অভিভাবক কতৃক মৌখিক অভিযোগ পেয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন।

জানা যায়, এর আগেও স্কুলে কর্মরত মানসিক ভারসাম্যহীন সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম কতৃক এধরণের আরও একাধিক বার ঘটনা ঘটিয়েছিল। সমাপণী পরিক্ষার কয়েক দিন আগে উক্ত শিক্ষক অস্বাভাবিক আচরন শুরু করেন। এমননি স্কুলের জানালার কাঁচ ভেঙ্গে ফেলে। এতে বাধা দিলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিককেও মারধর করে। তাছাড়া ১৬ নভেম্বর বিকালে উক্ত মানসিক ভারসাম্যহীন সহকারী শিক্ষক নুরুল আলম ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের অনুপস্থিতিতে খবর দিয়ে পরিক্ষার জন্য অতিরিক্ত ক্লাস করার কথা বলে স্কুলে নিয়ে আসেন। সন্ধ্যায় ছুটির আগে হঠাৎ কোন কারণ ছাড়াই বেপরোয়াভাবে ৪ জন ছাত্রীকে মারধর করেন। শিক্ষার্থীদের শোর-চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মারধরের শিকার পরিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। উক্ত শিক্ষক গত ২ বছর আগেও একইভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে বিভিন্ন ঘটনা ঘটিয়েছিলেন।

টেকনাফ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ এমদাদ হোসেন চৌধুরী বলেন ‘মৌখিকভাবে অভিযোগ পেয়েছি। এর আগে আরও ৪ জন ছাত্রী সমাপণী পরিক্ষার্থীদের মারধর করার লিখিত অভিযোগ বর্তমানে তদন্তাধীন রয়েছে। সম্ভাব্য বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অভিযুক্ত শিক্ষক নুরুল আলমকে ১১ ডিসেম্বর সেন্টমার্টিনদ্বীপ থেকে টেকনাফে চলে আসতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে’।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

চবি উপাচার্যের সাথে মিশর আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে সংবর্ধনা

বিমানবন্দর থেকে ইয়াবাসহ বরিশালের দুই তরুণী

ইয়াবা পাচারের দায়ে টেকনাফের যুবকের ১০ বছর জেল

মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে আ. লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন সিরাজুল মোস্তফা!

উলঙ্গ থাকার বিধান কী?

গ্যারেজে চাকরি করা প্রবাসী, কাগজ ব্যবসায় কোটিপতি

হঠাৎ স্যামসাং স্মার্টফোন বিস্ফোরণ! তারপর…

হাটহাজারীতে পিকআপ-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১

দেড় লাখ ইভিএম কেনার সিদ্ধান্ত

দেশে দারিদ্র্যের হার আরও কমেছে

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ১০ অক্টোবর

জাতীয়করণ হতে যাচ্ছে রাঙামাটির ৮০টি বিদ্যালয়!

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ

প্রধানমন্ত্রী সমীপে মহেশখালীর প্রবীণ রাজনীতিবিদ ডাঃ নুরুল আমিন জাহেদের খোলাচিঠি

টেকনাফে বিজিবি’র অভিযানে তিন কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

নুরজাহান আশরাফী কুতুবদিয়া উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা নির্বাচিত

প্রতিবন্ধী কোটা বহাল রাখার দাবী চবি শিক্ষার্থীদের

এবার স্কুলের দেয়াল পরিষ্কারে নেমেছেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ

রোহিঙ্গা যুবতী প্রেমিকসহ আটক শীর্ষক সংবাদের সংশোধনী