৯ এপ্রিল ২০২১ইং তারিখে অনলাইন নিউজ “ভয়েস ওয়ার্ড ২৪ডট কম ও কোহেলিয়া টিভি অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত “ কলাতলীতে রাসেলের নেতৃত্বে বিশাল ইয়াবা সিন্ডিকেট, ক্ষণে ক্ষণে বদলে যায় লাইফস্টাইল” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদে মধ্যম কলাতলী এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ী রাসেলের বসতবাড়িতে পুলিশের মাদক উদ্ধার অভিযান পরিচালতি হওয়ার পর একাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নাম প্রকাশ করা হয়। সেখানে ইয়াবা কারবারিদের সাথে আমি জড়িত রয়েছি উল্লেখ্য করে সংবাদ ছাপানো হয়েছে। যা খুবিই দুঃখজনক, আমি একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী ও স্বাত্বাধিকারী মধুবন বেকারি। মূলত রাসেলের বাড়ি থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। এই ঘটনায় তার মা ও ছোটভাইকে আটক হয়। আটকৃতরা হলেন শামসুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪০) ও তার ছেলে সাইফুল ইসলাম (২২)। তাদের ইয়াবা আটকের সংবাদে কেন আমার সাথে ইয়াবা রাসেলের পার্টনার উল্লেখ্য করে সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। সংবাদে আমি ও আমার প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ্য করে বলা হয়েছে যে, কলাতলী জামে মসজিদের নিচ তলায় একটি বিশাল মধুবন বেকারি রয়েছে। ওই বেকারির পার্টনার হল ইয়াবা রাসেল। মূলত মধুবন বেকারির স্বত্বধিকারী মালিক হচ্ছি আমি নিজেই। এখানে কেউ পার্টনার হিসেবে নেই। রাসেল কলাতলী এলাকার একজন স্থানীয় বাসিন্দা মাত্র। সে হিসেবে রাসেল অন্য দশটা ক্রেতার মতো সেও আসতো। আমার খাবারের দোকানে সে আসে বলে তো আমি ইয়াবা কারবারের সাথে জড়িত হওয়ার কোন কিছুই নেই।
রাসেল আমার মধুবন বেকারিতে আসে বলে মিথ্যা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করেছে এই অনলাইন নিউজ র্পোটালে। মূলত আমরা এলাকায় আমাদের পরিবার খুব সম্মানের সাথে জীবন কাটাচ্ছি বলেই অনেকের সহ্য হচ্ছে না। শুধু আমি কেন আমার পরিবারের একজনও মাদকের সাথে জড়িত নেই। এমন একটি সুন্দর পরিবারের সম্মান নষ্ট করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে একটি র্স্বাথ সংশ্লিষ্ট মহল। যদি কেউ বলে আমি মাদক ব্যবসা সাথে জড়িত তবে মনে করবো যারা মিথ্যা সংবাদ দেয় তারা হয়তো পাগল।
আমি একজন ব্যবসায়ী অন্য কারো সাথে জড়িয়ে যেভাবে আমাদের মিথ্যা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশিত করেছে তা খুবই দুঃখজনক ও মানহানিকর। কারন আমাদের পরিবারের ঐতিহ্য আছে ও সামাজিকভাবে সম্মান রয়েছে। পাশাপাশি আমি কলাতলী এলাকায় সম্মানের সহিত দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছি। মূলত এই নিউজে আমাকে অপরাধী বানিয়ে পুলিশ ও সমাজের গুন্যমান্য ব্যাক্তিদের চোখে অপরাধ হিসেবে গড়ে তোলতে চাই এই চক্রটি। সুতারাং এই মিথ্যা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট সংবাদের আমি তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এই রকম উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ পরিবেশন থেকে বিরত থাকার জন্য সাংবাদিক ভাইদের অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারি
আব্দু জব্বার
স্বত্বাধিকারী মধুবন বেকারি
কলাতলী ১২ নং ওয়ার্ড পৌরসভা কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •