মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সহস্র কোমলপ্রাণ ছাত্র-ছাত্রীদের কন্ঠে গাওয়া হলো- ভাষা শহীদদের নিয়ে জনপ্রিয় হৃদয়ছোয়া সঙ্গীত “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভূলিতে পারি” গানটি। ২০ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার রামু উপজেলা পরিষদ চত্বরে রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমার উদ্যোগে ও তাঁর নেতৃত্বে পরিবেশিত হয় এই ঐতিহাসিক সঙ্গীত। বৃহস্পতিবার সকালে এ সঙ্গীতের মূর্ছনায় ও দেশেপ্রেমের আবেগে কেপে উঠে রামু উপজেলা পরিষদের শহীদ মিনার প্রাঙ্গন। কোমলমতি শিশুরা যেন খুজে পায় ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী। ১৯৬৯ গণ আন্দোলন ও ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধ সহ বীর বাঙ্গালির দীর্ঘ সংগ্রামের ইতিহাস। শিক্ষার্থীদের মস্তিষ্কে জেগে উঠে বাংলাদেশ ঐতিহাসিকভাবেই বীরের জাতি। আমরা সেই নির্ভীক বীরদেই সন্তান।
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে উপজেলা পর্যায়ে ইউএনও প্রণয় চাকমার বলিষ্ঠ উদ্যোগে রামুতে সর্বপ্রথম শিক্ষার্থীদের জন্য সম্প্রতি ‘স্বপ্নযাত্রা’ বাস সার্ভিস চালু করা হয়।

ভিন্নধর্মী এই উদ্যোগের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা সিবিএন-কে বলেন, এদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রথম ভিত্তি মহান একুশে ফেব্রুয়ারি। এ সম্পর্কে কোমলমতি শিশুদের মাঝে ধারণা দেওয়ার উদ্দেশ্যে ও তাদের প্রতিভা বিকাশের শুরুতেই দেশপ্রেম উদ্বুদ্ধ করে তোলার জন্য এ ক্ষুদ্র প্রয়াস। যা মহান শহীদ দিবস পালনকে আরো বেশী সমৃদ্ধ করবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •