পেকুয়া সংবাদদাতা:
পেকুয়ায় নৌবাহিনীর অধিগ্রহণকৃত জমিতে রক্ষতি অবৈধ স্থাপনা ও বসতবাড়ি উচ্ছেদ করেছে স্থানীয় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এজমিতে সাব-মেরিন স্টেশন হবে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (সহকারী কমিশনার ভূমি) মিকি মারমার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি ও স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিকি মারমা বলেন, মগনামায় সাব-মেরিন স্টেশনে কর্মজজ্ঞ শুরু হয়েছে। বিশাল এ প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির টাকাও পরিশোধ করা হয়েছে। তারপরও বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি ও স্থাপনা থেকে যাওয়ায় তাদেরকে বারবার বারণ করা হয়েছিল বরে য়াওয়ার জন্য। কিন্তু তারা সরে না যাওয়ায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে ৭টি বসতবাড়ি ও ছোট আরো কয়েকটি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলোও উচ্ছেদ করা হবে।

চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম বলেন, নৌবাহিনীর অধিগ্রহণ জমিতে সরকারের পক্ষ থেকে উচ্ছেদ অভিযান চলছে। সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণও আদায় করা হয়েছে। তারপরও বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি নিজের ইচ্ছাই থেকে যায়। বারবার নোটিশও প্রদান করা হয়েছি সরকারের পক্ষ থেকে। সর্বশেষ আজ বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি উচ্ছেদ করেছে বলে শুনেছি। অথচ এবিষয়টি আমার উপর চাপানোর চেষ্টা করেছিল একটি মহল। মগনামায় যেভাবে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে আগামী কয়েকবছর পর স্বপ্নের নগরীতে পরিণত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •