ডেস্ক নিউজ : দীর্ঘ ২৮ বছর পর এবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দেশের ২য় পার্লামেন্ট খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ( ডাকসু) নির্বাচন। বহু প্রতীক্ষিত এই ডাকসু নির্বাচনে ভোটার হতে পারছেন না ঢাবির হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের আবাসিক ছাত্র মিলন ঘরামি।দৃষ্টিহীন এই শিক্ষার্থী ২০১১ সালে চরম সাহসীকতার পরিচয় দিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন। এই মিলন ঘরামিসহ যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার এডমিড কার্ড ডাউনলোড করতে পারে নি শতাধিক শিক্ষার্থী।বরিশালের মিলন ঘরামি, ঢাকার রাফাত এবং কক্সবাজারের জালাল আহমদ ( বর্তমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ) সহ কয়েকজন ছুটে যান ঢাবির বিভিন্ন শিক্ষক,বিভিন্ন অনুষদের ডিনের কাছে।সকল ডিনের বক্তব্য হল একমাত্র ভিসি স্যারই এই সমস্যার সমাধান করতে পারে। শতাধিক শিক্ষার্থীদের পক্ষে সেইদিন এডমিড কার্ড নতুন করে ইস্যু করার জন্য ভূমিকা রেখেছিলেন এই মিলন। এডমিড কার্ড বঞ্চিত শতাধিক শিক্ষার্থীদের পক্ষে জালাল, রাফাত এবং মিলনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল তৎকালীন ভিসি আ. আ.ম.স. আরেফিন সিদ্দিক সাথে দেখা করে এডমিড কার্ড পাওয়ার জন্য লবিং করলে ভিসি ডিনস কমিটির সাথে আলোচনা সাপেক্ষে এডমিড কার্ড দেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। ২০১১-১২ সালে “ঘ” ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে পাস করে মিলন ভর্তি হয় শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে । কিন্তু পারিবারিক আর্থিক সংকট এবং অসুস্থতার কারণে মিলন পড়াশোনা ঠিকভাবে চালিয়ে যেতে পারে নি।পরে পুনঃভর্তির জন্য আবেদন করলে ২০/০৯/ ২০১৬ তারিখে ডিনস কমিটি দশ হাজার( ১০,০০০) টাকা জরিমানা পূবক সকল বর্ষে ভর্তি সম্পন্ন করে আবারও ১ম বর্ষে ভর্তির সুযোগ প্রদান করেন। জরিমানার দশ হাজার টাকা যথাসময়ে প্রদান করতে সক্ষম হলেও সকল বর্ষের ভর্তির সর্বমোট ৩৫০০০ টাকা প্রদান করতে ব্যর্থ হওয়ায় এখনো রোল নাম্বার প্রদান করে নি ডিনস কমিটি। রোল নাম্বার না পাওয়ায় এবারে ডাকসু নির্বাচনে ভোটার হতে পারছেন না মিলন ঘরামি।সমাজের বিত্তবান এবং শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের আর্থিক সহায়তা কামনা করেন এই দৃষ্টিহীন শিক্ষার্থী। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা বিকাশ নাম্বার ০১৯১১১২৫২৫৬। ব্যাংক একাউন্টঃ ০১১৮১২৮০০০০০১৪১(ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, তোপখানা রোড শাখা) ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •