সিবিএন :
কক্সবাজার সিটি কলেজ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের নবীন বরণ- ২০১৮ এ বছরও ঝাকঝমকভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে । গতকাল ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার কলেজ রিসোর্স ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় মিলনায়তনে ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রধান ও কলা অনুষদ প্রধান অধ্যাপক এস এম আকতার উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ ক্যথিং অং। তিনি বলেন , উচ্চ শিক্ষায় কক্সবাজার সিটি কলেজ বিগত ২৫ বছরে বেসরকারী পর্যায়ে যথেষ্ট অবদান রেখেছে । বর্তমানে ১৭টি অনার্সসহ বিভিন্ন পর্যায়ে প্রিলিমিনারী ও ৬টি মাস্টার্স চালু হয়েছে। আরো ৩টি অনার্স ও ২টি  মাস্টার্স চালু হবে। দেশের সেরা ১৫টি কলেজের মধ্যে মডেল কলেজের স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছে।

ইসলামের ইতিহাসসহ প্রত্যেকটি বিভাগ ভাল ফলাফলও করছে। আমরা বিশ্বমানের শিক্ষার চ্যালেঞ্জ নিয়েছি। এই কলেজে যারা পড়ার সুযোগ পেয়েছে তারা সৌভাগ্যবান। বিশেষ করে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে সেরা বিভাগ হিসেবে অবদান রেখে যাচ্ছে।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ আবু মোহাম্মদ জাফর সাদেক , হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ প্রধান অধ্যাপক গোপাল কৃঞ্চ দাশ, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ প্রধান অধ্যাপক শাহনুর আক্তার , পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ও বিজ্ঞান অনুষদ প্রধান অধ্যাপক জেবুন্নেছা , ইসলামের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক শাহনেওয়াজ মুর্শেদ ও অধ্যাপক জসিম উদ্দিন ।

উপস্থিত ছিলেন ইসলামের ইতিহাস বিভাগের  অধ্যাপক নাসির উদ্দিন (১) ,অধ্যাপক নাসির উদ্দিন (২) , অধ্যাপক ফিরোজ শাহ,  অধ্যাপক সালাহ উদ্দিন , অধ্যাপক সাইফুদ্দিন আজাদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বর্ণাঢ্য র‌্যালী কলেজ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিভাগের ছাত্রী সানজিদা সুলতানা বৃষ্টি । কোরআন তেলোয়াত করেন জাহাঙ্গীর আলম। অধ্যাপক ফিরোজ শাহ বিগত ৫ বছরের বিভাগীয় কার্যক্রম পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশান এর মাধ্যমে তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে ছাত্র ছাত্রীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ রিদুয়ানুর রহমান , রুহুল আমিন , হাবিব হাসান মুন্না। । নবাগত ছাত্রছাত্রীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন নুরুল আফসার ও সানিয়া আক্তার । নবাগতদের  ফুল দিয়ে বরণ করেন কলেজ অধ্যক্ষ উপাধ্যক্ষ ও শিক্ষক মন্ডলী ।

বক্তব্য শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয় । এতে সংগীত পরিবেশন করেন মাসুক ইলাহী, তাহমিনা আক্তার রোমকি , মিজান , ফারুক , সোহানা আকতার , সুপর্না সুশীল , মিরাজ ,তানিয়া , মুন্নি ,জসিম  ও বিভাগীয় শিক্ষক বৃন্দ।  পরে মেহমান ও ছাত্রছাত্রীদের আপ্যাায়ন করা হয় ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •