আবদুল্লাহ আল আজিজ 


সুন্দরের আলো-আঁধার নিয়ে শিল্পের পথচলা।এ সূত্র থেকেই বলা যায়, সুন্দরের সকল আয়োজনই শিল্প; আর সুন্দরের নির্মাতাগণই শিল্পী। তেমনই একজন কারুকাজ শিল্পী কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পাতাবাড়ী গ্রামের মৃত বৈকুণ্ঠ বড়ুয়ার পুত্র প্রমোতোষ বড়ুয়া।১৯৯৪ সালে ১৭ নভেম্বর থেকে এই কাজে যাত্রা শুরু।

গ্রামীণ জনপদের মানুষের কাছে যুগ যুগ ধরে পরিচিত বাঁশ,বেত, কাঠ,গাছের ফেলনা গুঁড়ির মোটা দাগের কাজগুলোকে সূ শিল্পরুচিতে বদলে দিচ্ছেন এই শিল্পী। সৃষ্টি করছেন অসাধারণ কারুকাজের মূর্তি ও সৌন্দর্য উপকরণ। শুধু তাই নয়,নিজস্ব ভাবনা দিয়ে বড় বড় মূর্তি তৈরি করে থাকেন।ক্রেতার দেখানোমত কাঠ বা সিমেন্ট দিয়ে তৈরী করেন বিভিন্ন মূর্তি।

সম্প্রতি সরেজমিনে উখিয়ার পাতাবাড়ি গ্রামে গেলে প্রমোতোষ বড়ুয়া বাড়িতে কাজ করা অবস্থায় দেখা গেল। প্রতিটা কাজ খুব সুন্দর ভাবেই করে যাচ্ছেন। তার করা কারুকাজ, যা দেখলে মন ছুঁয়ে যায়। তিনি বিভিন্ন কৌশলে তার কাজ করে থাকেন।
আরো দেখা যায়, তার তৈরিকৃত মূর্তি ও ভাস্কর্য গুলা পরিচর্যা করছে। কাজের ধরন দেখাতে নিয়ে গেলেন তাঁর বাড়ির আঙিনায়। শিল্পীর নিজের পরিকল্পনায় বিভিন্ন গাছের কাঠ দিয়ে কারুকাজ করে তৈরি করেছেন। বাহারি নকশার ব্যবহার করে কাজগুলো করে থাকেন। তাকে যে কোন ডিজাইন দিলে সে অনুযায়ী মূর্তি তৈরি করে দিতে পারেন।
বানাতে পারেন যেকোনো মানুষের প্রতিকৃতি।তার করা কাজ গুলো বাড়িতে বা পছন্দের কোনো জায়গায় সাজিয়ে রেখে সৌন্দর্য বাড়ানো সম্ভব।

কথা হলো প্রমোতোষ বড়ুয়ার ভাতিজা নিঝুম বড়ুয়ার সাথে। তিনি বললেন, কারুকাজ এমন একটি আর্ট যা মন ছুঁয়ে যায় সবার হৃদয়ে। প্রমোতোষ বড়ুয়া একজন জাতশিল্পী। তিনি খুব ছোটকাল থেকে এই কাজ করে আসছেন। উনার সব চাইতে বড় বিস্ময়কর দিক হচ্ছে তিনি যেকোন ডিজাইনের মূর্তি তৈরি করে দিতে পারেন। বিভিন্ন অনুষ্টানের জন্য মূর্তি তৈরি করে বেশ খ্যাতি কুড়িয়েছেন।

এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় অর্ডার নিয়ে মূর্তি তৈরি করে থাকেন।


যোগাযোগ করার ঠিকানা


শিল্পী  প্রমোতোষ বড়ুয়া
পাতাবাড়ী, উখিয়া, কক্সবাজার।
মোবাইল:০১৮১৭৭৬৬৯৫৭

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •