বৃষ্টিতে নগরী অচল,সমন্বয়হীনতাই চলছে জলাবদ্ধতা

জে.জাহেদ,চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রামে মধ্যরাত থেকে টানা বৃষ্টি। আবারো মানুষের চরম ভোগান্তি। সড়ক আর প্রতিটি মোড়ে মোড়ে ওয়াসা ও সিটি কর্রপোরেশন এর সড়ক সংস্কার।

অতিরিক্ত বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা যেন লেগেই থাকে। অথচ নিরসনে হাজার কোটি টাকা খরচ করলেও সেবা সংস্থাগুলোর সমন্বয়হীনতার কারণে এখন পর্যন্ত এর কোনো সুফল পাওয়া যাচ্ছেনা।

আগে টানা কয়েক ঘন্টার বৃষ্টির সাথে জোয়ারের পানি প্রবেশের কারণে জলবদ্ধতা সৃষ্টি হলেও এখন আধ ঘন্টারও কম সময়ের বৃষ্টিতে ডুবে যাচ্ছে বন্দরনগরী ।

জলবদ্ধতা নিরসন সিটি কর্পোরেশনের এখতিয়ার বর্হিভূত বলে দায় এড়াচ্ছেন মেয়র।

আর সিডিএ চেয়ারম্যানের দাবি, সবগুলো প্রকল্প শেষ হলেই জলবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে নগরবাসী।

বর্ষা মৌসুম শুরু হওয়ার আগে থেকেই সামান্য বৃষ্টির পানিতে ডুবে যাচ্ছে নগরীর বেশিরভাগ এলাকা।

এখন জোয়ারের পানি নগরীতে প্রবেশের আগেই পুরো নগরী হাঁটু সমান পানিতে তলিয়ে যায়।

অথচ এ জলবদ্ধতা নিরসনে সরকার হাজার হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন।

সর্বশেষ অনুমোদন দেয়া হয়েছে ৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। কিন্তু তার পরও ভোগান্তি থেকে মুক্তি মিলছে না নগরবাসীর।

এতোদিন জলবদ্ধতা নিরসনে সিটি কর্পোরেশন কাজ করলেও এখন সে দায়িত্ব পালন করছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

আবদুচ ছালাম (চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) বলেন, টাকা যত প্রয়োজন হবে হোক, চট্টগ্রামকে জলবদ্ধতা মুক্ত করতেই হবে।

ইতোমধ্যে সিটি কর্পোরেশন সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়েছে, জলবদ্ধতা নিরসন তাদের কাজ নয়।

আ জ ম নাছির উদ্দিন (মেয়র, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন) গণমাধ্যমকে বলেন, সমস্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এই সমস্যার সমাধান হবে।

নগর পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, জলবদ্ধতা থেকে নগরবাসীকে মুক্তি দিতে গেলে সিডিএ এবং সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে সমন্বয়ের কোনো বিকল্প নেই।

স্থপতি আশিক ইমরান (নগর পরিকল্পনাবিদ) বলেন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কতৃপক্ষর দাবি যৌক্তিক কিন্তু তা বাস্তবায়ন করতে দেরি হয়েছে এটিও ঠিক।

প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলম( সাবেক উপাচার্য, চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়) দুইদিন পর ওয়াসা খোড়াখুড়ি শুরু করলে আমরা বেনিফিট পাবো না।

বৃষ্টির পানি সরে যাওয়ার পাশাপাশি সাগরের জোয়ারের পানি চলাচলে এক সময় নগরীতে ৩৪টি খাল ছিলো। কিন্তু দখল, দূষণ ও ভরাটের কবলে পড়ে অধিকাংশ খাল’ই অস্তিত্ব হারিয়েছে।

বর্তমানে চাক্তাই, রাজাখালী এবং মহেশখালসহ মাত্র কয়েকটি খাল তাদের অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

এদিকে পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস সুত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম বৃষ্টিপাত হয়েছে ১২৯ মিলিলিটার। আগামী কয়েকদিন বৃষ্টি হবার সম্ভাবনাও জানিয়েছেন।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

এই জনপদটি ইয়াবা নামক বিষ বৃক্ষের আবক্ষে নিম্মজ্জিত : সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন

যুগ্মসচিব হলেন কক্সবাজারের সন্তান শফিউল আজিম : অভিনন্দন

ধর্মীয় শিক্ষা মানুষের মাঝে মূলবোধের সৃষ্টি করে-এমপি কমল

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে ১৪জন আসামী গ্রেফতার

কক্সবাজার জেলা পুলিশকে আইসিআরসির ২৫০ বডি ব্যাগ হস্তান্তর

চকরিয়ায় পল্লীবিদ্যুতের ভুতুড়ে জরিমানা নিয়ে আতঙ্ক!

ঈদগাঁওয়ে পাহাড় কাটার দায়ে এক নারীকে ১ বছর কারাদন্ড

শুধু চালককে অভিযুক্ত করে লাভ নেই আমাদেরও সচেতন হতে হবে-ইলিয়াছ কাঞ্চন

মাওলানা সিরাজুল্লাহর মৃত্যুতে জেলা জামায়াতের শোক

কক্সবাজারের ৩দিন ব্যাপী ‘প্রাথমিক চক্ষু পরিচর্যা’ কর্মশালার উদ্বোধন

‘ঘরের ছেলে’র বিদায়ে ব্যথিত পেকুয়াবাসী

শিল্পী ফাহমিদা গ্রেফতার : জামিনে মুক্ত

‘মাশরুম একটি অসীম সম্ভাবনাময় ফসল’

তথ্য প্রযুক্তি’র সেবা সাধারণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে সরকার বদ্ধ পরিকর : শফিউল আলম

চট্টগ্রামে জলসা মার্কেটের ছাদে ২ কিশোরী ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৬

কোটালীপাড়ায় নিজ জমিতে অবরুদ্ধ ৬১ পরিবার : মই বেয়ে যাদের যাতায়াত

জামায়াত নেতা শামসুল ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদ ও মুক্তি দাবী

দুর্ঘটনারোধে সচেতনতার বিকল্প নেই : ইলিয়াস কাঞ্চন

Google looking to future after 20 years of search

ইবাদত-বন্দেগিতে মানুষ যে ভুল করে