কনক বড়ুয়া ,উখিয়া :
নির্যাতনের স্বীকার হয়ে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে লাখের পর লাখ অধিক রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গাদের বেশীর ভাগেরই আশ্রয় নিয়েছে উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায়। দুই উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দাদের তুলনায় রোহিঙ্গাদের সংখ্যা অনেক বেশী। ফলে বিপন্ন পরিবেশে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রোহিঙ্গাদের সাথে স্থানীয়রাও।

রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে ছুটে আসছে দেশি-বিদেশীরা। মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসছে অসংখ্য দাতা সংস্থা। সড়কে ত্রাণের গাড়ি বহর। অনেকে রোহিঙ্গা শরনার্থীদের দেখতে আসছে দূরদূরান্ত থেকে।

এরই ধারাবাহিকতায় প্রথম থেকে রোহিঙ্গাদের পাশে দাড়িয়েছে বিশ্বনন্দিত এনজিও “কারিতাস বাংলাদেশ”। বিভিন্ন প্রজেক্ট নিয়ে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত।

এ পর্যন্ত উখিয়ার কুতুপালং মধুরছড়ায় অনন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে কারিতাস বাংলাদেশ। মানবসেবার উচ্চস্থানে পৌছেচে এনএফআই তথা গ্যাস সিলিন্ডার ও চুলা ডিস্ট্রিবিউশনের মধ্য দিয়ে। শুধু এই নয়, এর সাথে প্রতি পরিবার পাচ্ছে উন্নতমানের মশারী, ছাতা, সোলার লাইট, ওয়াশ কিট, জেরিক্যান সহ মোট ২২ আইটেমের সামগ্রী। এসব পেয়ে অনেকটা স্বস্তির নাগালে পৌছেচে রোহিঙ্গা শরনার্থী। পাশাপাশি আশ্রয় তথা ঘরবাড়ির সহায়তা দিচ্ছে ‘কারিতাস বাংলাদেশ’।

বাংলাদেশ প্রধান শেখ হাসিনা ও উখিয়া টেকনাফের সাংসদ আব্দুর রহমান বদির আন্তরিক প্রচেষ্টায় উখিয়ার রোহিঙ্গা অধ্যুষিত কুতুপালং, থাইংখালী, পালংখালীসহ বাংলাদেশ সীমান্তের পাশ্ববর্তী এলাকাগুলোতে এনএফআই তথা গ্যাস সিলিন্ডার ও চুলা ডিস্ট্রিবিউশনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘কারিতাস বাংলাদেশ’।

ইতিমধ্যে রাজাপালং ইউনিয়ের কুতুপালং গ্রামের স্থানীয় জনগণকে সহায়তার অংশ হিসেবে এনজিও কারিতাসের উদ্যোগে ১ম পর্যায়ে ৩০০ পরিবারকে গ্যাসের সিলিন্ডার, চুলা, মশারী, সোলার লাইট, ছাতা বিতরন করা হয়েছে। এছাড়াও উল্লেখ্য এলাকাগুলোতে ধাপে ধাপে গ্যাস সিলিন্ডার ও চুলা বিতরন করার কথা রয়েছে।

এদিকে ১৯ মে শনিবার সকাল ১১ টায় কুতুপালং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এই এনএফআই(নন ফুড আইটেম) সামগ্রী বিতরন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাজাপালং ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বখতিয়ার অাহমদ। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন কারিতাসের উখিয়া এরিয়া ইনচার্জ আবু তাহের চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামমীলীগের দপ্তর সম্পাদক নুরুল হক খান, কুতুপালং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন ও কারিতাসের কর্মরত কর্মী প্রমূখ।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বখতিয়ার আহমদ বলেন, মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির প্রচেষ্টায় বিভিন্ন এনজিও স্থানীয় জনগণকে সহায়তা দিচ্ছে। ভবিষ্যতে এধরনের সহায়তা যাতে অারো বৃদ্ধি করা হয়। তিনি এসব সহায়তার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরী ও রাজাপালং ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক জাহাংগীর কবির চৌধুরী ও ‘কারিতাস বাংলাদেশ’ পরিবারের কাছে কৃতজ্ঞতা জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •