সিবিএন রিপোর্ট :

রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে মতবিরোধের উর্ধ্বে উঠে মানবিক উদারত্র পরিচয় দিলেন উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি। আগামী সংসদ নির্বাচনে উখিয়া টেকনাফ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয় প্রত্যাশীর প্রতিদন্ধি অধ্যাপক হামিদুল হক চৌধুরীর চরম দূর সময়ে সবার আগে পাশে দাড়িয়েছেন এমপি বদি। গুরুতর অসুস্থ হামিদুল হক চৌধুরীর চিকীৎসার সব দায়িত্ব বদি নিজের কাধে তুলে নিয়েছেন। আরে এতো দিন যারা হামিদুল হক চৌধুরীর শুভাকাঙ্কী ছিলেন দূরদিনে তারা কোন খোজ রাখেননি। বদির এই উদারতা নিয়ে জেলাজুড়ে বদির প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হামিদুর হক চৌধুরী মঙ্গলবার রাতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। বুধবার সকালে তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। গুরুতর অসুস্থ উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরীকে অসুস্থ হওয়ার খবর পেয়ে সংসদে বাজেট অধিবেশন শেষ করেই এমপি বদি চট্টগ্রামে ছুটে আসেন। চট্টগ্রাম পৌছা মাত্র বদি চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে ছুটে গিয়ে গিয়ে চিকিৎসার খোজ নেন। হামিদুল হক চৌধুরীর চিকীৎসার ব্যাপারে ডাক্তার দের সাথে পামর্শ করে চিকীৎসার সব দায়িত্ব নিজে নিয়ে নেন।

আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা জানান, সাম্প্রতিক সময়ে ১১ সংসদ নির্বাচনে দলিয় মনোনয়ন একটি মহল উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হামিদুল হক চৌধুরীর সাথে এমপি বদির মতবিরোধ সৃষ্টির চেষ্টা করে আসছে। বিশেষ করে উখিয়া-টেকনাফের নৌকার নিশ্চিত আসনটিকে হাত ছাড়া করার জন্য ওই মহলটি তৎপর হয়ে উঠে। পরবর্তিতে মহরটি বিভিন্ন সভা-সমাবেশে এমপি বদির বিরুদ্ধে বিষোদগার করা হয়। কিন্তু যারা হামিদুল হক চৌধুরীকে ব্যবহার করে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে ব্যস্ত ছিল তারা কেউই অসুস্থ হামিদ চৌধুরীকে দেখতেও যাননি। একবারের জন্য খবর নেওয়ার প্রয়োজন ও মনে করেননি।

কিন্তু সব মতবিরোধের উর্ধ্বে উঠে এমপি বদি হামিদুল হক চৌধুরীর চিকিৎসার জন্য সার্বক্ষনিক পাশে থেকে খোজ খবর নেন। শুক্রবার বদি নিজে দায়িত্বে ও নিজে উপস্থিত থেকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে করে হামিদুল হক চৌধুরীকে উন্নত চিকীৎসার জন্য চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা পাঠান। বদি ঢাকায় গ্যাস্টোলিভার হাসপাতালে হামিদুল হক চৌধুরীর চিকীৎসার সকল তদারকি করছেন।

হামিদুল হক চৌধুরীর স্বজনরা জানিয়েছেন, এমপি বদি রাজনৈতিক উদারতার ও মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। হামিদুল হক চৌধুরী ও এমপি বদি সম্পর্কে জামাই-শশুর হলেও সাম্প্রতিক সময়ে একটি কুচক্রী মহল তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির চেষ্টা করে আসছে। কিন্তু এমপি বদি সব বিরোধ ভুলে গিয়ে বিশাল মনের পরিচয় দিয়েছেন।