সিবিএন ডেস্ক:
আফগানিস্তানের ৫০ জনের বেশি নারী অ্যাথলেট এবং তাদের নির্ভরশীলদের দেশটিতে থেকে উদ্ধার করেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রখ্যাত খেলোয়াড়দের সুপারিশের পর অস্ট্রেলিয়া এমন পদক্ষেপ নিলো। অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং করপোরেশন (এবিসি) মঙ্গলবার এই খবর নিশ্চিত করেছে। খবর ডেইলি সাবাহ’র।

এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে নিজ দেশের নাগরিক এবং কাবুলের তাদের দূতাবাসের সাবেক কর্মীদের উদ্ধার করছে অস্ট্রেলিয়া। গত ১৫ আগস্ট তালেবানরা আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের দখল নেয়ার পর এই উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। এ পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার মানুষকে উদ্ধার করে অস্ট্রেলিয়া।

ওই ব্যক্তিদের মধ্যে প্রায় ৫০ জন নারী অ্যাথলেট এবং তাদের নির্ভরশীলও রয়েছে বলে জানিয়েছে এবিসি। তারা বলছে, বেশ কয়েকজন সাবেক প্রখ্যাত খেলোয়াড় তাদের উদ্ধারে অনুরোধ জানানোর পর অস্ট্রেলিয়া এমন পদক্ষে নিলো। আফগান নারী অ্যাথলেট থেকে দেশত্যাগে পেশাদার ফুটবলারদের অ্যাসোসিয়েশন ফিফপ্রোও বেশ সক্রিয় ভূমিকা রেখেছে।

আফগান নারী অ্যাথলেটদের দেশ ছাড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ফিফপ্রো। তবে কতজন খেলোয়াড় আফগানিস্তান ছেড়েছে তা জানায়নি তারা। এক বিবৃতিতে ফিফপ্রো জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে বিপুল সংখ্যক নারী ফুটবলার এবং ক্রীড়াবিদদের সরিয়ে নেয়ার জন্য আমরা অস্ট্রেলিয়ান সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞ।

তারা আরও জানায়, এই তরুণীরা ক্রীড়াবিদ এবং অধিকার কর্মী হিসেবে বিপদে পড়েছেন এবং বিশ্বব্যাপী তাদের সহকর্মীদের পক্ষ থেকে আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সাহায্য করার জন্য ধন্যবাদ জানাই। আফগান নারী ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক খালিদা পোপাল এখন ডেনমার্কে বাস করছেন। অস্ট্রেলিয়া সরকারের এই পদক্ষেপকে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিজয় বর্ণনা করেছেন তিনি।

তিনি বলেন, সংকটের এই মুহূর্তে নারী ফুটবলাররা সাহসীয় এবং শক্ত ছিলেন এবং আমরা আশা করি আফগানিস্তানের বাইরে তারা উন্নত জীবন পাবেন। আফগান ক্রীড়াবিদদের ভিসা আবেদন সম্পন্ন করার জন্য অস্ট্রেলিয়ার একজন আইনজীবীর সঙ্গে মিলে কাজ করেছেন কানাডার হয়ে দুইবার অলিম্পিকে অংশ নেয়া নিক্কি ড্রাইডেন। ওই ৫০ ক্রীড়াবিদের মধ্যে দুজন আফগান প্যারা-অলিম্পিয়ানও রয়েছেন।