প্রেস বিজ্ঞপ্তি
উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যক্ষ শাহ আলম চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হয়। সভায় সর্বসম্মত ভাবে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যক্ষ শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর নেতৃত্বে তৃনমূল পর্যায়ে সংগঠন গোছানোর সিদ্ধান্ত হয়।
সভায় বক্তারা উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগকারী সভাপতি হামিদুল হক চৌধুরীর দুর্নীতি, নেতাকর্মীদের সাথে দুর্ব্যবহার, পরিকল্পিত ভাবে ভিডিও তৈরী করে সিনিয়র নেতাদের সম্মানহানি সহ বিভিন্ন অপকর্ম ও মিথ্যাচারের কঠোর সমালোচনা করেন।
জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি রাজা শাহ আলম চৌধুরীর বিরুদ্ধে ভিডিও তৈরী করে মিথ্যা অপপ্রচারের নিন্দা জানানো হয়।
বক্তারা বলেন, হামিদুল হক চৌধুরী রাজনৈতিক ভাবে দেউয়ালিয়া হয়ে দুই সন্ত্রাসী ভাই অহিদ ও আমিন নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। বিএনপি-জামায়াতের সাথে আতাত করে তাদের এজান্ডা বাস্তবায়ন করছেন। তাদের গুপ্তচর হিসেবে কাজ করে আওয়ামী লীগের ক্ষতি করছেন।
বঙ্গমাতা মহিলা কলেজ থেকে পদত্যাগ করে একজন রাজাকারের ছেলেকে অধ্যক্ষের দায়িত্ব দিয়েছেন।
নেতৃবৃন্দ হুসিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের সাথে অসাংগঠনিক আচরণ ও ফেসবুকে অপপ্রচার বন্ধ করুণ। ড্রয়িংরুমে বসে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে আক্রমণাত্মক গালমন্দ, হুমকি ধমকি ও মাস্তানির রাজনীতির পরিহার করুণ। অন্যথায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।
সভায় তৃনমূলের রাজনীতিকে গতিশীল করতে ওয়ার্ড সম্মেলন সহ সাংগঠনিক কার্যক্রম শুরু করার সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত ও
প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আলম প্রকাশ বাঘা আলমের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গৃহীত হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আদিল উদ্দিন চৌধুরী, সাবেক জেলা সদস্য আবুল মনসুর চৌধুরী, সাবেক উপজেলা সভাপতি এডভোকেট জমির উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন মিন্টু, ইস্কান্দর হোসেন চৌধুরী, রিয়াজুল হক, সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী, আলী হোসেন খান, মাষ্টার সৈয়দ আলম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলী আহমদ, নুরুল হক খান, শহীদুল্লাহ কায়সার, আবু তাহের মেম্বার, আবুল কালাম আবু, আবুল কাশেম বাবুল, মুফিজুর রহমান, আবদুল জলিল মাষ্টার, ফজল করিম সিকদার, এডভোকেট রুহুল আমিন চৌধুরী রাসেল প্রমূখ।