মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

করোনা আক্রান্ত হয়ে পুলিশ সদস্য কনস্টেবল ছোটন দেব’র মৃত্যুতে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বাংলাদেশ পুলিশের নিজস্ব ফেসবুক পেইজে ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার দেওয়া এক শোক বাণীতে আইজিপি বলেন, করোনা প্রতিরোধের সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে গিয়ে প্রাণ দিলেন গর্বিত পুলিশ সদস্য, কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য কনস্টেবল ছোটন দেব। দেশ ও জনগণের কল্যাণে তার এ আত্মত্যাগ বাংলাদেশ পুলিশ শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ রাখবে।

আইজিপি তার আত্মার সৎগতি কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার ১৬ জুলাই ভোরে ঢাকাস্থ রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে কক্সবাজার জেলা পুলিশ এর সদস্য ও ডিএসবি’র কম্পিউটার অপারেটর ছোটন দেব (২৯) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এই প্রথম কক্সবাজার জেলা পুলিশের একজন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করলো। এছাড়া কক্সবাজার জেলা পুলিশের আরো ১৩৪ জন বিভিন্ন পদ মর্যাদার সদস্য গত ৪ মাসে নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নাগরিকদের মানবিক সেবা দিতে গিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

পরলোকগমনকৃত কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য কনস্টেবল ছোটন দেব চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বাতাজুড়ি, ধামদর হাট এলাকার সাধন দেব এর পুত্র। কনস্টেবল ছোটন দেব সরকারি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে গত ১০ জুন করোনা ‘পজিটিভ’ হন। পরে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছিলো। গত ৬ দিন যাবৎ সে পুলিশ হাসপাতালের আইসিইউ’তে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। ছোটন দেব ২০১১ সালের ১৮ আগস্ট বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।ছোটন দেব মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১৪ মাস বয়সী শিশু কন্যা সহ অনেক আত্মীয় স্বজন রেখে যান। ছোটন দেব এর মৃতদেহ পুলিশের ব্যবস্থাপনায় তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বাতাজুড়ি, ধামদর হাট এলাকা আনা হয়েছে। সেখানে তার শেষকৃত্যের প্রস্তুতি চলছে বলে জেলা পুলিশের নির্ভরযোগ্য সুত্র জানিয়েছে।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের কনস্টেবল ছোটন দেব সহ এ পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশের ৫৩ জন করোনা ফ্রন্ট যুদ্ধের বীর সেনানী বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করলো। তারমধ্যে কক্সবাজার জেলা পুলিশের সদস্য ছোটন দেব ৫২ তম।