মো. নুরুল করিম আরমান, লামা প্রতিনিধি :

সারা দেশের মত বান্দরবানের লামা উপজেলায়ও আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে রবিবার দুপুরে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা শাখার উদ্যোগে স্কুল কলেজ মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি, সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারী, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্থরের মানুষের সমন্বয়ে ‘নিয়ম মেনে অবকাঠামো গড়ি, জীবন ও সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করি’ এ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে এক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়। সেখানে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মজনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, সহকারী কমিশনার (ভুমি) ইশরাত সিদ্দিকা। এতে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তপন কুমার চৌধুরী, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম, সমাজ সেবা কর্মকর্তা আলী হোছাইন, কারিতসা স্যাপলিং প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়ক ইয়াহিয়া আহমেদ বিশেষ অতিথি ছিলেন। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের একান্ত সহকারী কামরুল হাসান পলাশের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্য গোলাম আযম সৌরভ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্য মিজানুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এর আগে উপজেলা পরিষদ চত্বরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ফোর্সেস সদস্যরা দুর্যোগের সময় আত্মরক্ষার নানা কৌশল দেখিয়ে মহড়ায় অংশ নেন। আলোচনা শেষে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।

সভায় বক্তারা বলেন, প্রাকৃতিক বা মানব সৃষ্ট যেসব সংকটময় পরিস্থিতি স্বাভাবিক জীবনযাত্রাকে ব্যাহত করে, সেগুলোকে দমন বা নিবারণের লক্ষ্যে এ দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে। ভূমিকম্প, বন্যা, জলোচ্ছ্াস, খরা, ঘূর্ণিঝড়, বজ্রপাত, মহামারী, দুর্ভিক্ষ প্রভৃতি মানবসমাজসহ পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। এতে অর্থনীতি, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে বিরূপ প্রভাব পড়ে। দুর্যোগ মাঝে মাঝে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করে যা মানুষের পক্ষে মোকাবিলা করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। তবে সচেতন হলে দুর্যোগের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনা সম্ভব হয়। বাংলাদেশের প্রেক্ষপটে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস বিশেষ গুরুত্ব বহন করে।