এ কে এম ইকবাল ফারুক, চকরিয়া:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় স্কুলছাত্র আনাচ ইব্রাহিমকে ছুরিকাঘাত করে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে ও খুনিদের গ্রেপ্তার পূর্বক দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে চকরিয়া পৌর সদরের মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে নিহত আনাচের সহপাটি ও বিভিন্ন শিক্ষাপতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

চকরিয়া উপজেলার সর্বস্থরের শিক্ষার্থীদের ব্যানারে বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরে এসব কর্মসূচী পালন করা হয়। এদিন সকালে নিহত স্কুলছাত্র আনাচের সাবেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চকরিয়া কেন্দ্রিয় উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে শিক্ষার্থীরা মিছিল বের করে চকরিয়া পৌর সদরের মহাসড়কে চলে আসে। পরে মহাসড়কে বিক্ষোভ করে পৌর সদরের জনতা টাওয়ারের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে শিক্ষার্থী আনাচের খুনিদের গ্রেপ্তার পূর্বক দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্কুলছাত্র আনাচ হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের পিতা হাফেজ মৌলানা নেচার আহামদ বাদী হয়ে ৬জনের নাম উল্লেখ করে আরও অজ্ঞাতনামা ৬জনকে আসামী করে চকরিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনার ৬দিন অতিবাহিত হলেও খুনের ঘটনায় জড়িত প্রকৃত কিলারদের এখনো পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এ নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনায় পুলিশ এজহার নামীয় আসামী রিয়াজ উদ্দিনকে জনগনের সহায়তায় গ্রেফতার করলেও অন্যান্য আসামীরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন। এমতাবস্থায় আনাচ হত্যার আদৌ সুষ্ঠ বিচার হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে স্কুলছাত্র আনাচ ইব্রাহিম হত্যার সাথে জড়িত প্রকৃত কিলারদের গ্রেপ্তার পূর্বক দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানানো হয়।

প্রসঙ্গত: ঈদের কেনাকাটা করে বাড়ি ফেরার পথে গত ২৫ মে রাত সাড়ে ১০টার দিকে চকরিয়া পৌরশহরের সুপার মার্কেটের সামনে দূবৃত্তরা প্রকাশ্যে স্কুলছাত্র আনাচ ইব্রাহীমকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় । পরে গুরুতর আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথে চুনতি এলাকায় মারা যায় আনাচ।

এঘটনার একদিন পর নিহত আনাচের পিতা হাফেজ মৌলনা নেছার আহমদ বাদী হয়ে ৬জনের নাম উল্লেখ করে ১২জনের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে রিয়াজ উদ্দিন নামে এক যুবককে গ্রেফতার করলেও আসল খুনিদের এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে পুলিশের দাবী খুনিদের ধরতে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।