বার্তা পরিবেশক:

২৪ মার্চ কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন স্থানীয়ভাবে স্বজ্জন ব্যক্তি ও ক্লিন ইমেজ হিসেবে পরিচিতি রাজনীতিবীদ ও সমাজ সেবক, টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সরওয়ার আলম। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, টেকনাফে ভাইসচেয়ারম্যান পদে ৮ জন প্রার্থী নির্বাচনী যুদ্ধে সামিল হয়েছেন। তবে স্বতন্ত্র থেকে আরো বিভিন্ন প্রার্থী হওয়ায় সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে জনগণের মনোনিত সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করা সরওয়ার। বর্তমান প্রেক্ষাপটে টেকনাফে ইয়াবার করালগ্রাসে অন্য প্রার্থীদের চেয়ে সরওয়ার আলমের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, ক্লিন ইমেজের সরওয়ার আলমের অবস্থা বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে টেকনাফে রাজনীতির মাঠে রয়েছেন। জনপ্রিয় এমপি বদি ও শাহিন বদির আস্থাভাজন হিসেবে কাজ করেই যাচ্ছেন। দীর্ঘবছর ধরে ক্ষমতার মধ্যে থাকলেও তার নেই কোন অপবাদ ও অপরাজনীতির অভ্যাস। তার রয়েছে পুরো উপজেলায় কর্মী বাহিনী। সে কারনে প্রতিটি ওয়ার্ডে-গ্রামে-মহল্লায় নির্ঘুম প্রচারণা চলছে টিউবওয়েল মার্কার।

সব কিছু বিচার বিশ্লেষণ করলে সরওয়ার আলম অন্য প্রার্থীদের থেকে অনেক সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে এবং ২৪ মার্চ নির্বাচনে সরওয়ার বিজয় এক প্রকার নিশ্চিত বলা চলে। যেহেতু তার সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা তার বিজয় সুনিশ্চিত করার জন্য একাট্টা হয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

তারা আরও জানান, অন্যান্য প্রতিদ্বন্ধীদের চেয়ে সরওয়ারের জনপ্রিয়তা যোজন যোজন দুরুত্ব রয়েছে। তারা বলেন, দেশের স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে বিজয়ী করতে টিউবওয়েল এর কোন বিকল্প নেই এই টেকনাফ উপজেলায়। তাই দল, মত, জাতি, বর্ণ নির্বিশেষে ২৪ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে সরওয়ার আলমকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবো।

সেন্টমার্টিন থেকে হোয়াইক্যং পর্যন্ত গনসংযোগকালে ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী সরওয়ার আলম বলেন, সামাজিক অবক্ষয় রোধে প্রয়োজন জনসচেতনতা। এলাকার অনেক যুবক মাদকাসক্ত হয়ে পরিবার পরিজনের দুচিন্তার কারন হয়েছে। অনেক সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান সঙ্গ দোষে নেশাগ্রস্ত হয়েছে। আপনাদের মূল্যবান ভোটে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলে পাড়া ও মহল্লায় মহল্লায় গিয়ে নিজ উদ্যোগে মাদক প্রতিরোধে জনসচেতনতা মুলক কাজে উদ্যোগী হব। এছাড়াও শিশু বিবাহ রোধ, শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নসহ নানা জনহিতকর কাজ করে আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষন করতে ভূমিকা রাখবো।

তিনি আরও বলেন, জনগণের জন্য বড় কিছু করতে বড় পরিসরের জায়গার দরকার হয়। তাই এবার সেই পরিধির জায়গা বাড়িয়ে তৃনমূল পর্যায়ে জনগণের কাছে সেবা পৌছে দিতে জনপ্রতিনিধি হওয়ার লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছি। আমি নির্বাচিত হলে টেকনাফকে মাদকমুক্ত করবো এটাই আমার একমাত্র লক্ষ্য-উদ্যোশ্য। এরপর উপজেলার উন্নয়নে নির্বিশেষে এলাকার, দেশের স্বার্থে কাজ করা এবং সরকার ঘোষিত নানা উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা হবে।

তিনি আরো বলেন, যারা দেশের শত্রু, জনগণের শত্রু তাদের বিরুদ্ধে আপোষহীন সংগ্রামের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছি। সেই বিশ্বাস থেকে বলতে পারি এবারের নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আমি সেরা।

বিজয়ের ব্যাপারে কতটুকু আশাবাদী এমন প্রশ্নে এ প্রার্থী বলেন, সবাই বিজয়ী হতে চাই। আমি বিশ্বাস করি, যদি আমার সাধারণ জনগণসহ সকল নেতা-কর্মীরা প্রাণ পণে কাজ করে যায় এবং ভোটাররা ভোট প্রদান করে তাহলে ২৪ মার্চ ভাইস চেয়ারম্যান পদে আমার বিজয় কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না ইনশাল্লাহ।