শাহেদ মিজান, সিবিএন:
সাদা পোশাকধারী একদল লোক বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় যুবক আবদুর রশিদকে (৩৩) । পাঁচ ঘন্টার পর তার লাশ মিলল কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে। নিহত কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ পাহাড়তলীর হালিমা পাড়ার আবদুল মালেকের পুত্র। রোববার ভোর ৪টায় রামুর উপজেলা দক্ষিণমিঠাছড়ির হাড়িরমাথা নিজের পাড়ার বাড়ি থেকে তাকে তুলে নিয়ে যায় বলে জানান তার বড়বোন রশিদা বেগম।

রশিদা বেগম জানান, আবদুর রশিদ মা, স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে চেইন্দায় বসবাস করতেন। প্রতিদিনের মতো রাতে বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলেন আবদুর রশিদ। ভোর ৪টার দিকে ৭/৮ জনের একদল সাদা পোশাকধারী লোক তাকে তুলে নিয়ে যায়। এর পাঁচ ঘন্টা পর পরিবারের লোকজন খবর পায়- কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রয়েছে আবদুর রশিদের লাশ। তার বুকে তিনটি গুলির চিহ্ন রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আবদুর রশিদ ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলেন। তার বিরুদ্ধে তিনটি ইয়াবা মামলা রয়েছে। এসব মামলায় তিনি কয়েকবার জেলও খেটেছেন। তবে পুলিশের সোর্স হিসেবেও পরিচয় দিতেন তিনি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ইকবাল হোসাইন বলেন, ‘কে বা কারা সকালের দিকে একটি লাশ মর্গে ফেলে রেখে যায়। পরে খোঁজ নিয়ে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়- তিনি পাহাড়তলীর আবদুর রশিদ। তিনি একজন মাদক ব্যবসায়ী এবং তার বিরুদ্ধে মামলাও রয়েছে।’