হাবিবুর রহমান সোহেল, নাইক্ষ্যংছড়ি:
রামুর কচ্ছপিয়া উচ্চবিদ্যালয় ছাত্রী রিফা আক্তার (১৪)  নামে এক ৬ষ্ঠ শ্রেনীর  নিখোঁজ হয়েছে। গত ৯ জুলাই সোমবার সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যের অজান্তে সে নিখোঁজ হয়। রিফার পিতার নাম আবু ছিদ্দিক তার বাড়ি রামুর কচ্ছপিয়ার তিতার পাড়া।
রিফার বাবা জানান, তার মেয়ের সাথে রামুর পানির ছড়া এলাকার মৃত নুরুসাফার ছেলে সেলিম ড্রাইভার নামে এক জনের সাথে সম্পর্ক ছিল। ওই সেলিম তার মেয়ে কে নিয়ে পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন সে। এদিকে ওই নিখোঁজ ছাত্রীকে খুঁজতে পরিবারের সদস্যরা ইতিমধ্যে ককসবাজার জেলার সহ সাম্ভব্য সকল আত্বীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে তারা নিরাশ হয়েছেন বলে জানান রিফার মা জয়নাব বেগম।
মা জয়নাব বেগম জানান, ওই সেলিম গত দু মাস আগেও রিফাকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছিল। পরে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি ও মেম্বারের চাপের মুখে আবারও তাকে ফিরিয়ে দেয় এবং কোন দিন এই ধরনের ঘটনা করবে বলে মুচলেকা দেয়। এই ঘটনায় রিফার বাবা অভিযোগ করেন তার মেয়েকে ওই সেলিমসহ তার আরো ৪/৫ জন বন্ধু অপহরন করেছে। আর তাদের ওই সব কাজে সহযোগিতা করেছেন গর্জনিয়ার কালাবদুর ও তার স্ত্রী মাসুদা।
কচ্ছপিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবছার উদ্দিন জানান, রিফা নামের এক ছাত্রী নিখোঁজ হয়েছে বলে শুনেছি। আর রিফা তাদের স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী বলে নিশ্চিত করেন প্রধান শিক্ষক।
এই ব্যাপারে রামু থানার ওসি তদন্ত মিজানুর রহমান জানান, নিখোঁজ ছাত্রীকে খুজতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।