ওসি দিদারুল ফেরদৌস মাত্র দেড় মাসে কুতুবদিয়াতে দেখিয়েছেন চমক!

মো: আকতার হোছাইন কুতুবী ॥

নির্মোহ কথাটি আমার কাছে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। পৃথিবীতে নির্মোহ মানুষের সংখ্যা খুব বেশি হয় না। দেশ-বিদেশে সুনাম সুখ্যাতি সম্মান অনেক কিছুই তিনি পেয়েছেন এবং পাওয়ার মতই চৌকস একজন পুলিশ কর্মকর্তা। গল্প, উপন্যাসের কল্পিত কাহিনী মাঝে মাঝে বাস্তবে ধরা দেয়। তিনি কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। তিনি হচ্ছেন বাংলাদেশের পুলিশের গর্ব। তিনি যেখানে চাকরি করেছেন সেখানেই আতঙ্কের মধ্যে থাকতেন ডাকাত, ইয়াবা গডফাদার, বড় বড় চোরাকারবারি ও স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। আমি যার কথা বলছি, তিনি হচ্ছেন কক্সবাজারের প্রিয় মুখ, পুলিশের গর্ব কুতুবদিয়ার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদৌস। বলাবাহুল্য দ্বীপ উপজেলা কুতুবদিয়ায় কত ওসি এসেছেন, চলে গেছেন তার কোন হিসাব নেই। কুতুবদিয়ার সচেতন মহল মনে করেন ফেরদৌসের মতো চৌকস, ন্যায়পরায়ন ও বন্ধুসুলভ ওসি কুতুবদিয়ায় আর আসেনি। তিনি যোগদান করার পর থেকে সবার মাঝে একটি কথা ওসি ফেরদৌস যোগদান করেছে ডাকাত সন্ত্রাসীরা কুতুবদিয়া ছেড়ে পালিয়েছে। কারণ দিদারুল ফেরদৌস হচ্ছেন খারাপ লোকদের জন্য আতঙ্কের একটি নাম। মাত্র দেড় মাসের মাথায় পুলিশি এ্যাকশনে কুতুবদিয়ার আইন-শৃঙ্খলার ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। যার প্রশংসার দাবিদার দিদারুল ফেরদৌস। দ্বীপের সাধারণ মানুষ চায় জলদস্যু, চোর ও সন্ত্রাসীদের অত্যাচার থেকে রেহায় পেয়ে সুন্দর ও শৃঙ্খলিত জীবন যাপন করতে। সেই সাধারণ মানুষের মনের আকাক্সক্ষাকে পূরণ করতে পেরেছেন ওসি ফেরদৌস। জাতিসংঘের সফল শান্তিরক্ষা মিশন শেষে গত ১৩ আগস্ট কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া থানায় যোগদান করেন ওসি মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদৌস। যোগদানের পরেই তিনি মাদক, জুয়া, সন্ত্রাস, চুরি, ছিনতাই, রাহাজানি ও জুলুমবাজের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন। এরপর থেকেই শুরু হয় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় তার পুলিশি এ্যাকশন।
১৯ আগস্ট মাদকসহ ৩ টি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী উপজেলার আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের ফতেহ আলী সিকদার পাড়ার নুর হোছাইন (৩০), ২০ আগস্ট সন্ধ্যায় বড়ঘোপের কৈবর্ত্য পাড়ায় অভিযান চালিয়ে পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী গীতা রাণী দাশ (৪২) কে ২০০ গ্রাম গাঁজাসহ, ২১ আগস্ট দক্ষিণ ধূরুংয়ের বাতিঘর পাড়ায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে ২ টি দেশীয় তৈরী এলজি, ৩টি রাম দা ও সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত ৬ টি মোবাইল ফোনসহ দক্ষিণ ধূরুং ২ নং ওয়ার্ডের আলী আকবর (২২), একই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের পারভেজ (১৪), ২৩ আগস্ট দিবাগত রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উত্তর ধূরুংয়ের আকবরবলী পাড়া থেকে কুখ্যাত জলদস্যু আবদু রহিম প্রকাশ লইক্যা (৪৭), তার সহযোগী ওমর ফারুক (৩০), ২৪ আগস্ট ধূরুং বাজার থেকে উপকূলের ত্রাস বিভিন্ন অপহরণসহ বহু অপকর্মের হোতা ইয়াবা গডফাদার খ্যাত লেমশীখালীর ইসহাক মেম্বার (৩৫) কে আটক করেন। এসময় তার স্বীকারোক্তিমতে ২ টি দেশীয় তৈরী এলজি ও ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধারও করা হয়।
৬ সেপ্টেম্বর (বুধবার) সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের মেডিকেল গেইট থেকে উত্তর বড়ঘোপের মৃত জাকের আহাম্মদের পুত্র কুখ্যাত ইয়াবা ব্যবসায়ী আনোয়ার হোছাইন (৩২), বড়ঘোপ বাজার থেকে চাঞ্চল্যকর কালামিয়া হত্যা মামলার আসামী আলী আকবর ডেইল কাহার পাড়ার মৃত বাদশার পুত্র মোঃ পারভেজ (১৬), মধ্যম কৈয়ারবিলের মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে মোঃ কাশেম (৩৬), নুরুল ইসলামের পুত্র শফি আলম (২২), ৭ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০ টার দিকে বড়ঘোপ মেডিকেল গেইট থেকে কৈয়ারবিল আনু হাজির পাড়ার দুর্ধর্ষ ডাকাত ফেরদৌস (৩৫), লেমশীখালীর ডাকাতের আস্তানা থেকে উত্তর ধূরুং বাঁকখালীর আব্দু রহমানের পুত্র অপহরণ মামলার আসামী গিয়াস উদ্দিন বাদশা (৩৩), হাজারিয়া পাড়ার সিরাজুল মোস্তফার পুত্র জকির (৪০), ধুরুং বাজার থেকে দক্ষিণ ধূরুং নুরার পাড়ার জেলখাটা ইয়াবা ব্যবসায়ি রমজান আলী (৪৬), কে অর্ধশত ইয়াবা ট্যাবলেটসহ, ২০ সেপ্টেম্বর উপকূলের ত্রাস লেমশীখালীর মৃত আবু মুসার পুত্র ছালে আহাম্মদ প্রকাশ ছইল্যা ডাকাতকে আটক করেন। তার বিরুদ্ধে ৮টি মামলা রয়েছে। সে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীও। উলা মিয়ার পুত্র কুখ্যাত ডাকাত আব্দুল্লাহ প্রকাশ মিন্টু (৩৫) কেও একই রাতে গ্রেফতার করেন।
১ অক্টোবর ডাকাতির প্রস্তুতিকালে তাবলের চরের কুখ্যাত সন্ত্রাসী আব্দুল কাদেরকে গ্রেফতার করেন। কাদেরের বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতি, পুলিশের উপর হামলা, অস্ত্র মামলাসহ ১০টি মামলা রয়েছে। আলী আকবর ডেইল খাল পাড়ার সৈয়দ নুরের পুত্র ইয়াসির (৩৫), কৈয়ার বিলের নাজের পাড়ার শাকের হোসেনের পুত্র হামিদ হাসান মাঝি (২৮) কে গ্রেফতার করেন। একই রাতে ধুরুং পূর্ব বাঁকখালী গ্রামে আব্দু রশিদের বাড়িতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে হাজী মোস্তাক আহমদের পুত্র ডাকাত কাইসার (২৮), লেমশীখালী থেকে আজাদুল হক (২৮)কে ও গ্রেপ্তার করেন।
জানা যায়, মিশনে যাওয়ার আগে ওসি ফেরদৌস ৫ বছরকাল ধরে কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন থানায় দায়িত্ব পালন করেছেন। সন্ত্রাস ও অস্ত্রের জনপদখ্যাত মহেশখালীতেও তিনি ছিলেন। সেখানেও দেখিয়েছেন চমক। তার চৌকসতায় সন্ত্রাসীরা ছিল ভীতির মধ্যে। সবাই বলে বেড়াত ফেরদৌস হচ্ছে মূর্তিমান আতঙ্কের একটি নাম। আমি (আকতার কুতুবী’র) মনে হলো, ওসি ফেরদৌস এমনই একজন পুলিশ অফিসার যার সুন্দর ব্যবহারে যেকোন মানুষ ম্গ্ধু হবে। দক্ষ, কর্মনিষ্ঠ মেধাবী ওসি ফেরদৌসকে কক্সবাজার জেলার মানুষ জনম জনম ভরে স্মরণ রাখবে। সাধারণ মানুষ পুরস্কৃত করতে না পারলেও মনখুলে সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া করবেন তার নীতি নৈতিকতার স্বাক্ষর রেখে যাওয়ার জন্য। আমার আরো মনে হলো ওসি ফেরদৌস নিজ স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে জনগণের স্বার্থকে বড় করে দেখেন। তাইতো মহামনীষির বাণীর কথাই মনে পড়ে গেলো। মহামনীষী বলেছেন, “পৃথিবীতে এসেছিস একটি দাগ রেখে যা” আসলি আর চলে গেলি এমনটা যেন না হয়। সত্যি এ পৃথিবীতে আসা-যাওয়ার মাঝে এমন কিছু মানুষ খুঁজে পাওয়া যায়, যাদের মাঝে উপরোক্ত মহামনীষীর কথাটি অক্ষরে অক্ষরে জীবনে বাস্তবে প্রতিফলিত হয়ে তাদের জীবন জ্বল জ্বল করছে। কিছু আলো জ্বালাতে হয় আর কিছ আলো এমনিতেই জ্বলে উঠে। অন্তর্গত চৈতন্যের প্রকাশ যাদের কর্মকে প্রভাবিত করে, যাদের পেশার দায়িত্ব সমৃদ্ধ করে তারাই অনেকের মাঝে ব্যতিক্রম হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। আর তেমনি একজন ব্যতিক্রম মানুষ হলেন চৌকস পুলিশ অফিসার ফেরদৌস। কিছু মানুষ থাকেন যাদের জীবনের সাফল্যের ভাগই বেশি। নিত্য নতুন ধারা রূপকার, অত্যাধুনিক ধরণ ও সৃজনশীলতার ধারক যদি এক ব্যক্তি হন এবং সেই সঙ্গে যদি যুক্ত হয় তার মেধা তাদের মত মানুষেরাই কর্ম ও পেশার পূর্ণতা লাভ করেন। কারণ মেধা ও মনন এবং চিন্তায় যারা আলাদা আর অসাধারণ, আসলে তাদের জন্ম হয়েছেÑ দেশ জাতি আর মানুষের গাঢ় অন্ধকার দূর করার জন্য। পেশাগত কারণে যে কোন মানুষ তার কর্মক্ষেত্রে মূলতঃ আলোচিত হয় সৎ ও সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনসহ মানুষের প্রতি আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার জন্য। আর তেমনি একজন পুলিশ অফিসার ফেরদৌস। এই চরম অবক্ষয়ের যুগে আলোকিত কিছু মানুষ তিমির হননের দায়িত্ব স্বীয় মাথায় তুলে নিয়েছেন বলেই এই সবুজ দেশ, এই সমাজ, এই রাষ্ট্র এখনও সুন্দর পথে চলছে। একটি পেশাদার, দক্ষ ও জনবান্ধব পুলিশ গণতান্ত্রিক সমাজের দর্পণ। সরকার গৃহীত উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন এবং এর ধারা অব্যাহত রাখার অপরিহার্য পূর্বশর্ত হিসেবে বিবেচ্য সুষ্ঠু আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও সহনীয় জননিরাপত্তা।
দেশের আইন, শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা পুলিশের অন্যতম দায়িত্ব। শত প্রতিকূলতার মাঝেও পুলিশ তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন অনেকাংশে। দেশের বাইরেও জাতিসংঘ শান্তি রক্ষা বাহিনীর আওতায় বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় রাখছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান। আমি আরো মনে করি, আধুনিক বিশ্বে গণতান্ত্রিক সমাজ কাঠামোতে পুলিশের কাছে জনগণের প্রত্যাশা ব্যাপক। তাই সসতা নিষ্ঠা, আন্তরিকতা এবং পেশাদারিত্বের মাধ্যমে পুলিশি সেবা দ্রুত জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। তাহলেই পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে এবং সমাজে আইনের শাসন সমুন্নত হবে। অন্য যে কোন পেশার তুলনায় পুলিশ বাহিনীর ক্ষমতা বেশি। রাষ্ট্র এ বাহিনীকে ক্ষমতা দেয়। সে ক্ষমতাকে জনগণের স্বার্থের জন্য প্রয়োগ করতে হবে। দেশ থেকে সন্ত্রাস, রাহাজানি, খুন, ধর্ষণ, ইয়াবাসহ দেশবিরোধী সকল কর্মকা- স্বমূলে বিনাশ করতে হবে। আমার প্রত্যাশা বাংলাদেশে প্রতিটা থানায় ফেরদৌসের মতো মেধাবী ও সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা সৃষ্টি হোক, দেশ থেকে দূর হোক হানাহানি ও অনাচার।
কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সম্পর্কে জানতে চাইলে কুতুবদিয়ার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ-সভাপতি এড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, আমি সাধুবাদ জানাচ্ছি সাহসি ও দায়িত্ববান পুলিশ কর্মকর্তা ফেরদৌসকে। তিনি কুতুবদিয়ায় যোগদান করার পর থেকে রাত-দিন পরিশ্রম করে আইন-শৃঙ্খলাকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাচ্ছেন পাশাপাশি তার পুলিশি ব্রতকে করেছেন উজ্জ্বল।
উত্তর ধূরুং এর চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আ.স.ম শাহরিয়ার চৌধুরী বলেন, নতুন ওসি ফেরদৌস আসলেই একজন কর্মনিষ্ঠ পরায়ন পুলিশ কর্মকর্তা। স্বল্প সময়ে অনেক ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে, উদ্ধার করেছে অস্ত্র যা প্রশংসনীয়। তরুণ যুবনেতা, সদ্য সমাপ্ত জেলা পরিষদ নির্বাচনে লটারীতে পরাজিত সদস্য মো: জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী ফরহাদ বলেন, ওসি ফেরদৌস যে এ্যাকশন শুরু করেছে সেটা চলমান থাকলে দ্বীপের সমস্ত জনগণ থাকবে নিরাপদে। বন্ধু হিসেবে পুলিশের উপস্থিতিটা হবে অনেকটা বিদ্যুতের মতো। বিদ্যুৎ আছে বলেই অন্ধকারে আলো জ্বলে। কিন্তু তাকে দেখা যায় না, অদৃশ্য থেকে সে বন্ধুর মতো কাজ করে। তবে থেমে গেলেই বিপদ, সঙ্গে সঙ্গে সবকিছু অচল হয়ে যায়। আমাদের প্রিয় কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: দিদারুল ফেরদৌসও হবেন সেই রকমের আলোয় আলোকিত।
লেখক পরিচিতি : মো: আকতার হোছাইন কুতুবী, প্রধান সম্পাদক জাতীয় জনতার কণ্ঠ, উপদেষ্টা সম্পাদক জাতীয় ম্যাগাজিন জাতির আলো ও সহ সম্পাদক জাতীয় দৈনিক আমার কাগজ এবং দি গুড মর্নিং, ঢাকা। ই-মেইল : ধশঃবৎশঁঃঁনরহবংি@মসধরষ.পড়স আলাপনে : ০১৮২২৮৫৮৪০০, ০১৭১২১৮০২৬৩।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

এসপি মাসুদ হোসাইনের কক্সবাজারে যোগদান, ডিসি’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাত

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য ইওসি স্থাপন

পেকুয়ায় প্রবাহমান খালে মাটি ভরাট করলেন প্রভাবশালী

কোনাখালীতে দোকান পুড়ে ছাই

বুবলীর সঙ্গে শাকিবের বিয়ে, গুঞ্জন নাকি সত্যি?

সাবেক ডিসি ও ইউএনওসহ তিনজনের কারাদণ্ড

ইয়াবাসহ আইন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা আটক

চকরিয়া উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ

চকরিয়ায় কথিত চিকিৎসকের ভূল চিকিৎসার শিকার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী

রামুর গর্জনিয়ায় বজ্রপাতে একই পরিবারের নারীসহ আহত ৫

মালুমঘাটে প্রভাবশালীর সহযোগিতায় চলছে বাল্য বিবাহ!

চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষ

নিরাপদ সড়ক চাই: নিজে বাঁচব, অপরকে বাঁচাব

বিএনপির ১৭৩ প্রার্থী প্রায় চূড়ান্ত

চবি উপাচার্যের সাথে মিশর আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে সংবর্ধনা

বিমানবন্দর থেকে ইয়াবাসহ বরিশালের দুই তরুণী আটক

ইয়াবা পাচারের দায়ে টেকনাফের যুবকের ১০ বছর জেল

মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে আ. লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন সিরাজুল মোস্তফা!

উলঙ্গ থাকার বিধান কী?