ইমাম খাইর, সিবিএন:
মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের টেলিসেবা নিশ্চিত করতে উখিয়া ও টেকনাফের ক্যাম্পগুলোতে চালু হয়েছে টেলিটকের ১০টি বুথ।

এসব বুথের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগে মোবাইল ফোনে ফ্রি কথা বলার সুযোগ দেবে টেলিটক।

বুধবার দুপুরে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে টেলিটকের বুথ উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এ সেবা চালু করা হয়েছে। যতদিন রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে থাকবে ততদিন এ সেবা চালু থাকবে।

এছাড়া ওই এলাকায় নিরবিচ্ছিন্ন ভয়েস সার্ভিস নিশ্চিত করতে টেলিটকের সক্ষমতাও বাড়ানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

মিয়ানমারের রাখাইনে জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে প্রাণ বাঁচাতে দলে দলে বাংলাদেশে এসেছে রোহিঙ্গারা। তাদের আসা এখনও অব্যাহত আছে। তাই ইতোমধ্যে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং এলাকায় ২ হাজার একর জমির উপর গড়ে উঠেছে নতুন ক্যাম্প। এছাড়া উখিয়া ও টেকনাফে রয়েছে আরও ১০টি ক্যাম্প। এসব ক্যাম্পে এখন পর্যন্ত নতুন করে আসা প্রায় ৫ লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। তাদেরকে টেলি সেবা দিতে কক্সবাজারের কুতুপালং, বালুখালী, থাইংখালী, হাকিমপাড়া, পালংখালী ও হোয়াইক্যং অস্থায়ী ক্যাম্পে ১০টি বুথ চালু করেছে টেলিটক।

 

আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগে সহযোগিতা করতে মোবাইল ফোনে ফ্রি কথা বলার সুযোগ দেবে মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক। দুপুরে কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে টেলিটকের বুথ উদ্বোধন করে প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এ সেবা চালু করা হয়েছে।

এক ক্যাম্প থেকে অন্য ক্যাম্পে স্বজনদের সঙ্গে বিনামূল্যে কথা বলার সুযোগ পেয়ে খুশি রোহিঙ্গারা। ওই এলাকায় নিরবিচ্ছিন্ন ভয়েস সার্ভিস নিশ্চিত করতে টেলিটকের সক্ষমতাও বাড়ানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তারানা হালিম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •