রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে মধ্যস্থতার ভূমিকা নেবে না ভারত।

ভারতের পররাষ্ট্র দফতরের বরাতে এ খরব দিয়েছে রাশিয়ার সরকার নিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা স্পুটনিক।

এতে হয়েছে, ভারতের পররাষ্ট্র দফতর জানিয়েছে রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু সংকট নিরসনে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের মধ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা নেয়ার কোনো পরিকল্পনা দিল্লির নেই। ভারত কেবলমাত্র বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দেবে।

খবরে ভারতের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র রাজিভ কুমারকে উদ্বৃত করে বলা হয়, ভারত অপারেশন ইনসানিয়াত-এর আওতায় এ পর্যন্ত তিন দফায় মানবিক সহায়তা দিয়েছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখছে ভারত। রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের ত্রাণ সরবরাহে দুই দেশ সমন্বয়ের ভিত্তিতে কাজ করছে। উদ্বাস্তু ইস্যু মোকাবেলায় বাংলাদেশকে পূর্ণ সহযোগিতা দিতে ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা বন্ধে মিয়ানমারের ওপর ভারতের প্রভাব কাজে লাগানোর জন্য বাংলাদেশ অনুরোধ করেছিল বলে খবরে উল্লেখ করা হয়।

রাশিয়ার সংবাদ সংস্থার অপর এক খবরে বলা হয়েছে, রাখাইনের সংঘাতপূর্ণ এলাকায় কূটনীতিক পাঠাতে ভারত আগ্রহী নয়। তবে ভারতের সংবাদ মাধ্যম রাখাইন রাজ্যে যেতে পারে।

সদ্য সমাপ্ত নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে আগামী সোমবার বিদেশী কূটনীতিক ও সংবাদ মাধ্যমকে রাখাইনে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছিল মিয়ানমার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •