মিয়ানমারে জাতিগত সহিংসতার শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত হিন্দু রোহিঙ্গাদের শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে নগদ আর্থিক অনুদান দিয়েছে দেশের অন্যতম বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা কোস্ট ট্রাস্ট।
শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে উখিয়ার কুতুপালং এলাকায় নির্মিত হিন্দু শরণার্থী ক্যাম্পে গিয়ে এই অনুদান প্রদান করা হয়। অনুদান হিসেবে প্রতি হিন্দু পরিবারকে এক হাজার টাকা হারে ৯৪ পরিবার এই সহায়তা পায়।
আর্থিক অনুদান প্রদান উপলক্ষে ক্যাম্প আঙ্গিনায় আয়োজন করা হয় সংক্ষিপ্ত অনুষ্টান।
স্থানীয় মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি সনজিত শীলের  সভাপতিত্বে অর্থ বিতরনকালে উপস্থিত ছিলেন কোস্ট ট্রাস্ট কক্সবাজারের সিডস প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম, উখিয়া রিলিপ অপারেশন সেন্টারের সমন্বয়ক মো: ইউনুছ, মো: এয়াকুব, হেলাল উদ্দিন, মনসুর আলম, নুর আহামদ প্রমুখ।
কোস্ট ট্রাস্টের পরিচালক সনত কুমার ভৌমিক বলেন, জাতিগত সহিংসতার শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা হিন্দুরা চলমান দূর্গাপূজা উৎসব থেকে বঞ্চিত হয়েছে। পূজার কেনাকাটা তো দূরের কথা, পূজার কোন আমেজ তাদের মাঝে থাকার কথা নয়। মানবিক বিবেচনায় আমরা তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। পাশাপাশি আমরা অন্যান্য রোহিঙ্গা ক্যাম্প গুলোতেও ত্রান কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি।
উল্লেখ্য, কুতুপালং হিন্দু শরণার্থী ক্যাম্পে ১০৭ টি পরিবাওে ৫১৭ জন সদস্য রয়েছে। এরা গত ২৪ আগষ্ট দিবাগত রাতে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। এর পর থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন ত্রান সহায়তা দিয়ে আসছে। তাদের সরেজমিন খোঁজ খবর নিতে এসেছিলেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সমাপ্রদায়ের সাধারন সম্পাদক রানা দাশ গুপ্ত।
এই ক্যাম্পের মূল সমস্যা ঠিক অন্যান্য ক্যাম্পের মতো। এখানে নেই পর্যাপ্ত স্যানিটেশন ও থাকার ব্যবস্থা। ছোট্র একটি লম্বালম্বি ঘরে থাকছে ৫১৭ জন। এক জায়গাতে চলছে তাদের থাকা এবং রান্নার কাজ। যেকোন সময় অগ্নিকান্ড ঘটার আশংকা রয়েছে এই ক্যাম্পে।
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •