গণহত্যার অভিযোগকে ‘দায়িত্বহীন’ বলে অস্বীকার মিয়ানমারের

রাখাইন প্রদেশে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ‘গণহত্যা’ চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছে মিয়ানমার। সোমবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত হ্য দো সুয়ান বলেন, এ ধরনের শব্দ ব্যবহারের ক্ষেত্রে আইনি পর্যালোচনা এবং শক্তিশালী প্রমাণ জরুরি।

মিয়ানমারের এই রাষ্ট্রদূত বলেন, রাখাইনে কোনো ধরনের ‘জাতিগত নিধন’ অথবা ‘গণহত্যা’র মতো ঘটনা ঘটেনি। অন্যান্য দেশের এই অভিযোগকে দায়িত্বহীন এবং অস্পষ্ট বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। তিনি উত্তর রাখাইনের পরিস্থিতিকে বস্তুনিষ্ঠ এবং নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানিয়েছেন।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে সহিংসতা শুরুর পর বাংলাদেশে পালিয়ে আসা প্রায় ৪ লাখ ৩০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিমের দুর্দশা ও তাদের অধিকারের ব্যাপারে কথা বলছে বেশ কয়েকটি দেশ। ওইদিন পুলিশের তল্লাশি চৌকিতে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার জেরে রাখাইনে সামরিক অভিযান শুরু হয়।

চলতি মাসের শুরুর দিকে জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাই কমিশনার সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের পরিকল্পিত অভিযান ও হামলার সমালোচনা করেন।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের বৈঠকে হাই কমিশনার জেইদ রা’দ আল হুসেইন বলেন, ‘মানবাধিকার তদন্তকারীদের প্রবেশেল অনুমতি দিচ্ছে না মিয়ানমার, যে কারণে পরিস্থিতি মূল্যায়ন করা যাচ্ছে না; তবে পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে, জাতিগত নিধন হিসেবে মন্তব্য করেছে।’

এ ধরনের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে সুয়ান বলেন, রোহিঙ্গাদের পালিয়ে যাওয়ার বেশ কয়েকটি কারণ আছে। প্রধান কারণ হচ্ছে, ভীতিগত।

‘সেখানে কোনো ধরনের জাতিগত নিধনের ঘটনা ঘটেনি। কোনো গণহত্যা নেই। মিয়ানমারের নেত্রী; যিনি দীর্ঘদিন ধরে স্বাধীনতা এবং মানবাধিকারের জন্য লড়াই করেছেন; তিনি এ ধরনের নীতি মেনে নেবেন না। আমরা জাতিগত নিধন ও গষহত্যা ঠেকাতে সবকিছুই করবো।’

গত কয়েক সপ্তাহে রাখাইন প্রদেশ থেকে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মসুলিম মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়েছে। জাতিসংঘ মিয়ানমারের এই সঙ্কটকে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে জাতিগত নিধন চালানো হচ্ছে বলে উল্লেখ করেছে।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব নেই; তাদেরকে অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসী হিসেবে মনে করে দেশটির সরকার। সংখ্যালঘু এই সম্পদ্রায় এর আগেও সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধ এব মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সহিংসতার শিকার হয়েছে। তবে দেশটি বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

সূত্র : ইউএন।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

একান্ত সাক্ষাৎকারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন অপরাধীর সাথে আপোষ নয়

প্রসঙ্গ : প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চলতি দায়িত্ব

বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের প্রায় ১শ কি.মি সড়ক চলাচলের অনুপযোগী, সেতুমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ

টেকপাড়ায় মাঠে গড়াল বৃহত্তর গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্টের ৫ম আসর

মাতারবাড়ী কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্প পরিদর্শনে গেলেন বিভাগীয় কমিশনার

নতুন বাহারছড়ার সেলিমের অকাল মৃত্যু: মেয়র মুজিবসহ পৌর পরিষদের শোক

জেলা আ’ লীগের জরুরী সভা

মাদক কারবারীদের বাসাবাড়ীতে সাঁড়াশি অভিযান, ইয়াবাসহ আটক ৩

সৈকতে অনুষ্ঠিত হলো জাতীয় উন্নয়ন মেলা কনসার্ট

পেকুয়ায় অটোরিকশা চালককে তুলে নিয়ে মারধর

পুলিশ সুপারের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ

ফেডারেশন অব কক্সবাজার ট্যুরিজম সার্ভিসেস এর সভাপতি সংবর্ধিত

কাউন্সিলর হেলাল কবিরকে বিশাল সংবর্ধনা

কলাতলীতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, দুইজনকে জরিমানা

আ. লীগের কেন্দ্রীয় টিমের জনসভায় সফল করতে জেলা শ্রমিকলীগ প্রস্তুত

মানবপাচারকারী রুস্তম আলী গ্রেফতার

দেশে গণতান্ত্রিক অধিকার নেই, পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে : শাহজাহান চৌধুরী

১২দিনেও খোঁজ মেলেনি মহেশখালীর ১৭ মাঝিমাল্লার

শেখ হাসিনার উন্নয়নের লিফলেট বিতরণ করলেন ড. আনসারুল করিম

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার-১০