আজিম নিহাদ, কক্সবাজার:
কক্সবাজার শহরে গত ৪ সেপ্টেম্বর থেকে অবৈধ মাছবাজার উচ্ছেদে নামে পৌরসভা। দফায় দফায় মাইকিং ও অভিযান চালিয়ে গত কয়েকদিনে উচ্ছেদ করে প্রধান সড়কের উপর বসা মাছবাজার, আইবিপি সড়কের শহরমুল্লুকের বাজার ও কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন অবৈধ মাছবাজার। কিন্তু পৌর প্রশাসনের নির্দেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ফের চালু করেছে শহরের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন অবৈধ মাছবাজারটি।

পর পর কয়েকবার অভিযান চালিয়ে বাজারটি বন্ধ করার পরও ফের চালু করায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে মানুষের মধ্যে। অভিযোগ উঠেছে স্থায়ীয় এক প্রভাবশালী কমিশনারের নাম ভাঙিয়ে এক ব্যক্তি ওই বাজারটি ফের চালু করেছে। গতকাল সোমবারও বাজারটি উচ্ছেদে যান পৌরসভার প্রতিনিধি দল। কিন্তু দখলদারের বাঁধা ও হুমকির মুখে পিছু হটে যেতে বাধ্য হন তারা।

পৌরসভার এক কর্মচারি বলেন, গত ৪ সেপ্টেম্বর থেকে শহরে অবৈধভাবে মাছবাজার বসার উপর নিষেধাজ্ঞা দেন পৌর কর্তৃপক্ষ। সেই অনুযায়ী অন্যান্য অবৈধ বাজারের সঙ্গে এই বাজারটিও পর পর দুইবার উচ্ছেদ করা হয়। কিন্তু গতকাল আবারও বসার খবর পেয়ে পূণরায় অভিযান চালানোর সময় বাঁধা দেন এক ব্যক্তি। তিনি নিজেকে স্থানীয় কমিশনারের ফুফাতো ভাই পরিচয় দেন। এবং ওই কমিশনারের পক্ষে বাজারটির তদারককারি বলে দাবী করেন।

তিনি বলেন, উচ্ছেদ চেষ্টার সময় ওই ব্যক্তি তাদের সঙ্গে অশালিন আচরণ করেন। এক পর্যায়ে নানা ধরণের হুমকি দেন। শেষ পর্যন্ত তার বাঁধার মুখে অভিযান না করে ফেরত যেতে হয়। পরে বিষয়টি পৌর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়।

কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন সড়কের যে স্থানে বাজারটি বসে সেটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ স্থান। এই সড়ক দিয়ে পূর্বদিকে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে আর পশ্চিম দিকে আদালতপাড়া ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যাতায়াত করে লোকজন। তাই এই ধরণের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের উপর বাজার বসার কারণে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। আর মাছের দুর্গন্ধে নাক চেপে ধরে চলাফেরা করতে হয়। প্রশাসনের নাকের ডগায় এই বাজারটি বসালেও দেখেও না দেখার ভান করছে প্রশাসন। এতে ভুক্তভোগি মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুত অবৈধ বাজারটি উচ্ছেদের দাবী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •