এম.মনছুর আলম, চকরিয়া:
বাল্যবিবাহ ও যৌন হয়রানী রোধে চকরিয়ায় চারদিন ব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের হলরুমমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সাহেদুল ইসলামের সভাপতিত্ব এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি আরম্ভ করা হয়।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম বিএ(অনার্স)এম এ।
বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আজাদ,উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের সার্জন ডা: ফেরদৌসি বেগম,উপজেলা মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা জাহান প্রমুখ।প্রশিক্ষণ কর্মশালায় ১৮ইউপি চেয়ারম্যান,স্ব স্ব মাধ্যমিক বিদ্যায়ের প্রধান শিক্ষক,ইমাম ও কাজী উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথি বক্তব্যে বলেন,বাল্য বিবাহ একটি মারাত্মক ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে।এ থেকে উত্তোরণে সকলকে একযুগে কাজ করতে হবে।এখন থেকে যদি বাল্য বিবাহের পরিমাণ না কমালে নারীর প্রতি সহিংসতা, মাতৃমৃত্যুর ঝুঁকি, অপরিণত বয়সে গর্ভধারণ, প্রসবকালীন শিশু মৃত্যুঝুঁকি, প্রজনন স্বাস্থ্য সমস্যা, নারী শিক্ষার হার হ্রাস, স্কুল থেকে ঝড়ে পড়ার হার বৃদ্ধি, নারীদের অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়াসহ নানাবিধ নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা থাকবে।
এছাড়াও সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা(এমডিজি)অর্জনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হবে এবং বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়বে বাংলাদেশ। বর্তমান প্রেক্ষাপটে বাল্য বিবাহের পাশাপাশি ইভটিজিং ও এক ধরণের ভাইরাসের মতো কাজ করছে সমাজে।স্কুল ও কলেজগামী ছাত্রীদের শিক্ষা প্রতিষ্টানে যাতায়তে কিছু বখাটে যুবক মুখে শিসবাজিয়ে উত্ত্যাক্ত করে থাকে।এ ব্যাপরে সকলস্তরের ব্যাক্তিকে সজাক থেকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে কাজ করে এর বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তুলতে হবে বলে আহ্বান জানান।
চকরিয়ায় উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্প, স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি(জাইকা)সহায়তায় ও চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে “বাল্য বিবাহ ও ইভটিজিং রোধকল্পে জনপ্রতিনিধি, মাধ্যমিক পর্যায়ের প্রধান শিক্ষক,মসজিদের ইমাম,কাজী ও মাধ্যমিক ছাত্রীদের ১৮থেকে ২১তারিখ পর্যন্ত চার দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •