সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীকে সোচ্চার ভূমিকা পালন করতে হবে। মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনীর নির্যাতনে লক্ষ লক্ষ রোহিঙ্গা মুসলমান নর-নারী শিশু জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। আমাদেরকে এসব রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থীদের জান, মাল ইজ্জতের নিরাপত্তা, ও থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। সামর্থবান সবাইকে রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা প্রদানে এগিয়ে আসতে হবে। আজ কক্সবাজারের টেকনাফে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণকালে তিনি এ কথা বলেন।
রবিবার খেলাফত মজলিসের মহাসচিবের নেতৃেত্ব টেকনাফ, হোয়াইক্যং, বালুখালী, কুতুপালংয়ে রোহিংগা শরনার্থীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে অন্যান্যের সাথে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রিয় অফিস ও প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল জলিল, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নূরুল আলম আল মামুন, কক্সবাজার জেলা সভাপতি মাও. আবু মুসা, সেক্রেটারি মাও. জুনায়েদ মাহমুদ সাহেদ, সহসভাপতি মাও. মুফতি আব্দুল হক, শহর সভাপতি মাও. ওমর ফারূক, মাও. শাহাদত হোসেন, হাফেজ রফিকুল ইসলাম, মো: রাশেদ, এবং প্রচার ও মিডিয়া সহযোগী হিসেবে আছেন চট্টগ্রাম মহানগরী অফিস ও প্রচার সম্পাদক এম. ওবাইদুল্লাহ প্রমূখ। একই সাথে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের সাবেক কেন্দ্রিয় সভাপতি ও হবিগঞ্জ জেলা খেলাফত মজলিস সহসভাপতি অধ্যাপক আবদুল করিমের নেতৃত্বে ২৫ -সদস্যের হবিগঞ্জ জেলা খেলাফত মজলিসের একটি ত্রাণ টিম রোহিঙ্গা শরনার্থীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করে। এ ঠিমে আরে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশিক্ষণ সম্পাদক এহতেশামুল হক শামীম,জেলা নির্বাহী সদস্য কামরুল আলম, বাহুবল উপজেলা সভাপতি মাও. কামরুল ইসলাম, সহসভাপতি মাও. শহীদুল ইসলাম, চুনারুঘাটের সেক্রেটারী মাও. ফারুখ আহমদ, শায়েস্তাগঞ্জ পৌর সেক্রেটারী মাও নোমান আহমদ প্রমুখ।
একই সাথে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস কেন্দ্রিয় সভাপতি মুহাম্মদ আজিজুল হকের নেতৃত্বে আজ টেকনাফ, শাহ পরীর দ্বীপ ও আশপাশের এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •