গর্জনিয়ার কৃষকেরা অসহায়: চার পয়েন্টে দিতে হয় চাঁদা

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়া ইউনিয়ন থেকে কক্সবাজার কিংবা ঢাকা-শহরে রপ্তানিকৃত কৃষিপণ্য থেকে চার পয়েন্টে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। এ ঘটনায় শান্তিতে নেই হাজারো কৃষক। কৃষিপণ্য থেকে সংশ্লিষ্ট গর্জনিয়া ইউপি সরকারি
রাজস্ব আদায় করছে। অথচ কৃষকদের কাছ থেকে একই পণ্যের জন্য পাশ্ববর্তী গর্জনিয়া বাজার, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ এবং পার্বত্য বান্দরবান জেলা পরিষদের নাম ভাঙিয়ে ইজারাদাররা চাঁদা আদায় করছে।

গর্জনিয়া ইউপির আট নম্বর ওয়ার্ড সদস্য নুরুল আলম বলেন, ‘স্ব স্ব ইউনিয়নে ইজারা নিলে- অন্য ইউনিয়নে ইজারার টাকা নেওয়ার কোন বিধান নেই। কিন্তু কচ্ছপিয়া ইউপি সেই বিধি বার বার ভঙ্গ করছে। এতে করে গর্জনিয়ার কৃষকেরা আর্থিক এবং মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।’

স্থানীয় কৃষকেরা জানায়, গর্জনিয়া অংশে কোন হাট নেই। বেঁচা কেনা হয়না। তবুও কচ্ছপিয়া ইউপির গর্জনিয়া বাজার ইজারাদারেরা ক্ষেতের পাশে গিয়ে চাঁদা আদায় করেন। গর্জনিয়া-নাইক্ষ্যংছড়ি-রামু সড়ক দিয়ে শশাসহ কৃষিপণ্য নানা প্রান্তে রপ্তানি হয়ে থাকে। এ কারণে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে কচ্ছপিয়া ইউপির ইজারাদারসহ অন্যরা গর্জনিয়া ইউপির ইজারার রশিদ থাকলেও দাপট দেখিয়ে কৃষক থেকে টাকা আদায় করছে। টাকা না দিলে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।

বোমাংখিল গ্রামের কৃষক ওমর ফারুক (৩২) বলেন, ‘এক পিকআপ শশা রপ্তানি করতে গর্জনিয়া ইউপিকে হাজার টাকা ইজারা দেওয়ার পরও বাধ্য হয়ে কচ্ছপিয়া ইউপিকে
৮০০ টাকা দিতে হচ্ছে। এর পর নাইক্ষ্যংছড়ির দুটি পয়েন্টেও টাকা দিতে হয়। এ ক্ষেত্রে গর্জনিয়ার রশিদ দেখালেও কোন কাজ হচ্ছে না।’ ফারুকের মত শতাধিক কৃষকের অভিযোগ একই। তাঁরা প্রতিবাদ করেও ফল পাচ্ছেন না।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘অন্যায়ভাবে গর্জনিয়ার কৃষক থেকে বাকিরা চাঁদা নিচ্ছে। বিষয়টা খুবই দু:খজনক। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা চাই।’

জানতে চাইলে কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু মো.ইসমাঈল নোমন স্বীকার করেছন- এক ইউপি ইজারার টাকা আদায় করলে, অন্য ইউপি নিতে পারে
না। বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন। গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ওসি, তদন্ত) কাজি আরিফ উদ্দিন বলেন, কৃষকের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবেন।

রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম জানান, বিষয়টি নিয়ে তিনিও খুবই ব্যথিত। ঘটনার সুষ্ঠু সামাধান এবং চাঁদাবাজি বন্ধে আগামী ১৫ দিনের
মধ্যে কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

বিজিবি ক্যাম্প এলাকায় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন

টেকনাফ সাংবাদিক ফোরাম’র আহবায়ক কমিটি গঠিত

কক্সবাজার-৩ আসনে বিএনপির মনোনয়নপত্র জমা দিলেন অধ্যাপক আজিজ

“দুখরে রোগে ও ভয় পায়!”

নিরাপদ জীবনে ফিরতে চায় ইয়াবা ব্যবসায়ীরা

রোববার থেকে বিএনপির সাক্ষাৎকার শুরু

মিয়ানমারে শতাধিক রোহিঙ্গা গ্রেফতার

বিএনপি নেতা আবু সুফিয়ান (চট্টগ্রাম-৮) আসনে মনোনয়নপত্র নিলেন

কক্সবাজার-২ আসনে কারাবন্দী আবুবকরের পক্ষে মনোনয়ন ফরম জমা

ঈদগাঁওতে ইউনিক পরিবহন ও টমটমের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৪

চবির ‘প্রফেসর’ পদোন্নতি পেলেন কক্সবাজারের হাসমত আলী

খুটাখালীর মহাসড়ক কিনারায় অবৈধ ভাসমান দোকানপাট উচ্ছেদ

চবিতে গণিত বিভাগের ২দিন ব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান শুরু

১৯দিন ব্যাপী চুনতির সীরত মাহফিল ১৯ নভেম্বর

ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় শিশুসহ ৪১ জন আটক

গর্জনিয়ার জমিদার ফরুক আহমদ শিকদারের সহধর্মিনীর ইন্তেকাল

মালিকবিহীন ৪০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

আকিদা ঠিক করেন, সব ঠিক হয়ে যাবে -শাহ আহমদ শফি

গাজাসহ ডিআরসি কর্মকর্তা আটক

কক্সবাজার-৩ আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের চূড়ান্ত প্রার্থী আলহাজ্ব ডাঃ মুহাম্মদ আমীন