হাটহাজারী থেকে ১৮ রোহিঙ্গা পরিবার উদ্ধার

hathazari-thana-image-1-e1505225857314.jpg

মোহাম্মদ হোসেন, হাটহাজারী:
চট্টগ্রামের হাটহাজারী থেকে ১৮জন রোহিঙ্গা নারী পুরুষকে উদ্ধার করা হয়েছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উদ্ধারকৃত পরিবার গুলোকে স্ব-সম্মানে উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানোর ব্যবস্থা করছেন। পরিবার গুলোকে উদ্ধারের পরে পুলিশ তাদেরকে জিঙ্গাসা করে জানা যায় তারা এক আত্মীয় সহযোগিতায় এখানে এসেছেন। উদ্ধাকৃত এ সব পরিবারকে মানবিক চিন্তা করে স্ব-সম্মানে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানান হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মাসুম।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে (১২সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার পৌর সদরের ফটিকা কামাল পাড়ার নুর আলম কলোনী ভাড়া বাসা থেকে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়। পালিয়ে আসা এ সব রোহিঙ্গা পরিবার একটু আশ্রয়ের খুঁজে টেকনাফ থেকে তাদের এক আত্মীয় মাধ্যামে মুলত হাটহাজারীতে এসেছিলেন বলে পুলিশকে জানান।
উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গা পরিবার গুলো পুলিশ দেখে ভয় পেলেও পরে তারা বুঝতে পারে তাদেরকে আটক করা হয়নি। দেশের আইন অনুযায়ী তাদেরকে যেখানে সেখানে বসবাস করা অবৈধ। উদ্ধার করা এ সব পরিবার গুলোর সাথে পুলিশ মানবিক আচারণ করে তাদেরকে সম্মানের দৃষ্টিতে থানা হেফাজতে নিয়ে আসেন। কতজন রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে তার একটা হিসাব সরকার শুরু করেছেন। যার কারনে তাদেরকে উকিয়া ক্যম্পে পাঠানো ব্যবস্থা করা হয়েছে।
উদ্ধারকৃত মোঃ মিয়া হোছেন(৫৮), আমির হোসেন(২৫), রহিমা খাতুন(২৭), নুরফা বানু(১৮), শাবনুর(৩), নুর ফাতেমা(১৭), সূর্য রহমান(৪), জিয়াবুর (১৪), মাহমুদা খাতুন(২২), শবনম(৫), মোঃ শহীদ (১০), নুর কায়দা(৫), মাহমুদ হোসেন(৩০), নুর হাবা(১৯), কামাল সাদেক(৭), আব্দুর রহমান(২০), ওমর সাদেক(১), হেজ্জু রহমান(১৫), লায়লা খাতুন(৪২)।
হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মাসুম মেঠো ফোনে এ প্রতিবেদককে বলেন,গোপস সংবাদের ভিত্তিতে ওই কলোনীর বাসা থেকে তাদেরকেত উদ্ধার করা হয়। নির্যাতিত এ সব পরিবারকে স-সম্মানে উকিয়া ক্যাম্পে পাঠানোর হবে। আরাকান রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা এ সব পরিবার গুলো আশ্রয়ের পাশাপাশি সরকার রোহিঙ্গা পরিবার গুলোকে নিবন্ধন করে একটা তালিকা শুরু করেছেন। যদি এ সব পরিবার যেখানে সেখানে আশ্রায় নেয় তাহলে ওই তালিকা থেকে বাদ যেতে পারে যার কারনে আমরা স-সম্মানে তাদেরকে উকিয়া পাঠানো ব্যবস্থা করছি।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আক্তার উননেছা শিউলি এ প্রতিবেদককে বলেন,উদ্ধারকৃত ১৮জন রোহিঙ্গা পরিবার গুলোকে উকিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে হস্থান্তর করা হবে।

Top