শাহ আলম ,  ডুলাহাজারা :

মাজার বেঁধে ফকিরের বেশে সাধারণ লোকজনকে তাবিজ , দোয়া পড়া , পানি পড়া , আম ও নিম পাতার ঝাঁড়ফুক করে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা । এমন ভন্ড ফকিরের আবির্ভাব হয়েছে কক্সবাজারের চকরিয়া ডুলাহাজারায় ।  ভন্ড ফকিরের  আস্তানায় উপচে পড়া সাধারণ মানুষের ভিড় । এ ভন্ড ফকির হচ্ছেন চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের উত্তরপাড়া গ্রামের ফয়েজ আহমদের বাড়ীর ছৈয়দ আহমদের পুত্র জমির হোসেন (১৯)।

এলাকার সচেতন মানুষ জানান , গত ৩ সপ্তাহ ধরে অত্র গ্রামের ছৈয়দ আহমদের নিরক্ষর পুত্র জমির হোসেন বিভিন্ন নাটকীয়তার মাধ্যমে নানান এলাকা থেকে দালাল ও সোর্স দিয়ে সহজ সরল নারী-পুরুষকে প্রতারণা করে  ভবিষ্যত গণনা সহ নানান রোগ ব্যাধির আজব কথা বলে এ নিরক্ষর ভন্ড ফকির জমির তাবিজ , দোয়া , পানি পড়া , আম ও নিম পাতার ঝাড়ফুক দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। প্রতি শনি ও মঙ্গলবার নাকি মানুষের জীবনের রাশি ও রোগব্যাধি চাওয়ার একমাত্র উপযুক্ত সময়। এ দিনগুলিতে এ ভন্ড ফকিরের  আস্তানায় সহজ-সরল মানুষের উপচে পড়া ভিড়ের দৃশ্য দেখা যায় ।

এ ভন্ড ফকির জমিরের সাথে কথা বলে জানা যায় ,সে নিরক্ষর । তাকে ফজরের নামাজ কয় রাকাত জিজ্ঞেস করা হলে বলে , ৬ রাকাত ১২ নিয়ত । প্রতিবেদককে এ কথা বলার  সাথে সাথে  তাকে তার মা ও বৃদ্ধ দাদী ডেকে ভেতরে নিয়ে যায় । তারপর জমির হোসেনের মা ও বৃদ্ধ দাদী বলেন ,  ছেলেটি পড়তেও জানে না লিখতেও জানে না বটে ,আল্লাহর হুকুমে সে হঠাৎ করে আল্লাহর আসমানী কিতাব আল কোরআন স্বপ্নযুগে হাতের মুঠোয় পেয়েছেন। তবে সে কোরআন পড়তে জানে না।

তাকে এমন প্রশ্ন কেন করা হল তার সুত্র ধরে রাগান্বিত মূখে অশ্লীল ভাষায়  গালিগালাজ করতে থাকে ফকিরের আত্মীয় স্বজন। ফলে আর কিছু জানা হল না।

এলাকাবাসী ও সচেতন মহলের  জরুরী ভিত্তিতে এ ভন্ড ফকিরের  কর্মকান্ডে প্রশাসনের নজর দারীর দাবী  করেছেন।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •