ডেস্ক নিউজ:
‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে কেউ যাতে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারে, ঝিমিয়ে পড়া জঙ্গিরা যাতে চাঙ্গা হতে না পারে; এ জন্য গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর নজরদারি ও তৎপরতা রয়েছে।’

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে কিছু উগ্রমনা লোক অপৎপরতা চালাচ্ছে কিনা বা অস্থিতিশীলতা তৈরি করছে কিনা আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো এ ইস্যুতে কাজ করছে।

মনিরুল বলেন, রোহিঙ্গাদের প্রতি সরকার মানবিক আচরণ করছে। কিন্তু রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে কেউ যাতে তাদের জঙ্গিবাদে রিক্রুট না করতে পারে এবং ঝিমিয়ে পড়া জঙ্গিবাদকে সক্রিয় করতে না পারে; সে তৎপরতা অব্যাহত আছে।

শুক্রবার রাতে রাজধানীর নিকুঞ্জ ও খিলক্ষেত এলাকায় অভিযান চালিয়ে নব্য জেএমবির দুই সদস্যকে গ্রেফতারের ঘটনায় এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ডিএমপি।

রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান হত্যা-নির্যাতনের মুখে এরইমধ্যে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন অন্তত ২ লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা। এসব মানুষের কেউ যাতে কোনো অপরাধ কর্মে জড়িয়ে না পড়তে পারে, তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন মহল থেকে দাবি উঠেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •