হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ :

টাকার জন্য পাহাড়ে জিম্মী করে রাখা ৩২ জন রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করেছে বিজিবি। ৮ সেপ্টেম্বর বিকালে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শীলখালী গ্রামের পুর্বে নুরারধারি নামক পাহাড় থেকে বিজিবি ৩২ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ-শিশুকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তম্মধ্যে ৭ জন পুরুষ, ১৫ জন নারী এবং ১০ জন শিশু।

জানা যায়, জনপ্রতি ১০ হাজার টাকার দাবিতে বাহারছড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের একটি রাজনৈতিক দলের সভাপতি ছৈয়দুল্লাহ তাঁর ট্রলারে করে আনা ৩২ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ-শিশুকে আটকে রাখেন। আটকে রাখার খবর জানাজানি হলে ট্রলার মালিক ছৈয়দুল্লাহ গত ৩ দিনে ৩টি বাড়িতে স্থান পরিবর্তন করে শেষে পাহাড়ে নিয়ে রাখে। টেকনাফ-২ বিজিবির উপ-অধিনায়ক জানান দাবি মতে টাকা দিতে না পারায় রোহিঙ্গাদের আটকে রাখার বিষয় জানতে পেতে তাৎক্ষণিক বিজিবির দল অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্টে এধরণের ঘটনা ঘটছে। খবর পাওয়ার সাথে সাথে বিজিবি অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করে আনছে।

বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাওঃ আজিজ উদ্দিন জানান টাকার জন্য আটকে রাখা ৩২ জন রোহিঙ্গাকে বিজিবি কতৃক উদ্ধার করার বিষয়টি শুনেছি। উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বাহারছড়া তাফহীমুল কুরআন দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওঃ মোস্তাক আহমদ এবং বাহারছড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ আতিক উল্লাহ আতিক মানবিক সহায়তা দিয়ে শামলাপুরে পৌঁছে দিয়েছেন। তিনি আরও জানান মাছ শিকারের ফিশিং ট্রলার রোহিঙ্গা আনতে মিয়ামারে না যেতে, রোহিঙ্গাদের বসতবাড়িতে আশ্রয় না দিতে, তাদের সাথে অমানবিক আচরণ না করতে গত ৩ দিন ধরে উপকুলীয় ইউনিয়ন জুড়ে মাইকিং করা হচ্ছে। তবে একথাও ঠিক যে বাংলাদেশ থেকে ট্রলার যাওয়ার সাথে সাথে রোহিঙ্গারা উঠে চলে আসে। অনেক রোহিঙ্গা ট্রলার ভাড়া হিসাবে কোন টাকাই দিতে পারেনা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •