ডেস্ক নিউজ:

রোহিঙ্গাদের খোঁজখবর নিতে ঢাকায় এসেছেন তুরস্কের ফার্স্টলেডি এমিনে এরদোগান ও দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত ক্যাভুফোগলু। বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে একটি প্রাইভেট বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন তারা। এ সময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম তাদের স্বাগত জানান।

বৃহস্পতিবার সকালে তার কক্সবাজারের টেকনাফ যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে তুরস্কের ফার্স্টলেডি রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা দেবেন।

তুরস্কের ফার্স্টলেডি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সাম্প্রতিক সংঘাতে বিপর্যস্ত রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের মানুষের অবস্থা দেখতে কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করবেন।

কক্সবাজারে তুরস্কের প্রতিনিধিদের সফরসঙ্গী হিসেবে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর যাওয়ার কথা রয়েছে।

কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফিরে এসে সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তারা বৈঠক করবেন।

রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে গত শুক্রবার বিবৃতি দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। তিনি একে ‌’গণহত্যা’ বলেও উল্লেখ করেন।

এর আগে গত সপ্তাহে বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদকে ফোন করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ের ব্যাপারে বাংলাদেশকে সহায়তার অঙ্গীকার করেন।

গত ২৪ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ পোস্ট ও সেনা ক্যাম্পে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির হামলার পর সেখানে নতুন করে অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী।

এরপর বাংলাদেশ সীমান্তে নতুন করে রোহিঙ্গাদের ঢল নামে। জাতিসংঘের হিসাবে, বুধবার পর্যন্ত এই দফায় প্রায় এক লাখ ৪৬ হাজার মানুষ মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •