কক্সবাজার মডেল হাই স্কুলের এডহক কমিটি প্রতিহতের ঘোষণা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

ঐতিহ্যবাহী কক্সবাজার মডেল হাই স্কুলের নির্বাচিত কমিঠি অনুমদন না দিয়ে উল্টো সেটাকে পাসকাটিয়ে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড কতৃক কমিটি বাতিল করে এডহক কমিঠি গঠন করা সম্পূর্ন আইন বহির্ভূত তাই এই এডহক কমিটিকে সর্বাত্মক ভাবে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে স্কুল পরিচালনা কমিটি।  বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবী করেন নেতৃবৃন্দ। বিকাল ৫ টায় স্কুল মিলনাতনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কক্সবাজার জেলা আওমীলীগের সাবেক সভাপতি একেএম মোজাম্মেল হকের ছেলে কক্সবাজার মডেল হাই স্কুল পরিচালান কমিটির নির্বাচিত সদস্য শাহীনুল হক মার্শাল। এ সময় বক্তারা বলেন এই বিদ্যালয় ইতি মধ্যে কক্সবাজারের একটি অন্যতম শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিস্টানে পরিণত হয়েছে। এর আগেও পর্যন্ত ৩ দফাই এডহক কমিঠি করে এই বিদ্যালয়েকে একটি মহল বানিজ্যিক প্রতিষ্টানে পরিনত করেছিল। লেখাপড়ার মান শুন্যের কোটায় নিয়ে গিয়েছিল। পরে আবারো একটি বিশেষ কমিটির নামে বিদ্যালয়কে একটি ব্যাক্তিগত প্রতিষ্টানে পরিনত করেছিল একটি মহল। পরে এলাকার সর্বস্থরের মানুষ ও অভিভাবক মিলে ২০১৩ সালে বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা আলহাজ কবির আহাম্মদ সওদাগরের নেতৃত্বে সুষ্ঠ নির্বাচনের মাধ্যমে কমিঠি গঠন করে, সেই থেকে এ পর্যন্ত স্কুলের শিক্ষার মান থেকে শুরু করে অবকাঠামো গত বিশাল উন্নয়ন সাধন করে, ১ জুলাই/১৭ স্কুল কমিঠির মেয়াদ শেষ হলে। ৮১ দিন আগে নিয়ম অনুযায়ী খসড়া ভোটার তালিকা করে ২২ এপ্রিল চুড়ান্ত ভোটার তালিকা করে ২ মে জাকজমক পূর্ন পরিবেশে নির্বাচন সম্পন্ন করে। আর সব কিছু তত্তাবধান করেন কক্সবাজার সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সেলিম। উনার সভাপতিত্বে কমিটির প্রথম সভা করে প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে ৪ জুন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শকের কাছে কমিটি অনুমোদনের জন্য পাঠাই। কিন্তু চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড সেই নির্বাচিত কমিটি অনুমোদন না করে উল্টো কমিটিকে পাস কাটিয়ে কমিটি বাতিল করে একটি এডহক কমিটি করার জন্য চিঠি দেয়। যা নিয়ম বহিভূত। এছাড়া বিদ্যালয়ের সম্পূর্ন বেসরকারী নীতিমালায় পরিচালিত  কে.জি স্কুলের ২ জন শিক্ষককে অব্যাহতি দেওয়া বিষয়কে নিয়ে কিছু ষড়যন্ত্রকারীরা স্কুলকে তাদের স্বার্থ হাসিলের মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করছে বলেও অভিযোগ করেন কমিটির নেতৃবৃন্দ। এছাড়া সম্প্রতি বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ রমজান আলীকে নিয়ে যে সমস্ত সংবাদ প্রকাশ হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন । কে.জি স্কুলের শিক্ষক নিয়োগ এবং অব্যাহতি বিষয়ে প্রধান শিক্ষক রমজান আলীর কোন ভূমিকা নেই। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মেহেরুজ্জামান, আব্বাস উদ্দিন, মোশারফ হোসেন দুলাল।

সর্বশেষ সংবাদ

শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হলেন অধ্যাপক ফরিদ

দুবাই কনস্যুলেটে গণহত্যা দিবস পালিত

ভাইরাল সেই ছবি নিয়ে যা বললেন আবুল কালাম চেয়ারম্যান …..

পিইসিতে মেধা তালিকায় দুইজনসহ কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুলের ঈর্ষণীয় সাফল্য

কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হলেন রফিকুল ইসলাম খান

শহীদ এটিএম জাফরের পক্ষে স্বাধীনতা পদক গ্রহণ করলেন ছোট ভাই শাহ আলম

জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গণহত্যা দিবসের আলোচনা সভা

এপ্রিলে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

সদর উপজেলায় প্রার্থীতা ফিরে পেলেন নুরুল আবছার

ইকবাল বদরী : একজন বিরল সমাজ সেবক

জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ স্কাউট শিক্ষক কোরক বিদ্যাপীঠের আনচারুল করিম

সাগরপাড়ের শিশুদের নিরাপত্তায় পদক্ষেপ নেয়া হবে

সোমবার স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন কক্সবাজারের শহীদ জাফর আলম

ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুতের সাব জোনাল অফিসকে জোনালে উন্নতিকরন

আমিরাতে রিহ্যাব ক্ষুদে আঁকিয়ে সিরিজের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা

দল হিসেবে জামায়াতের বিচার: সংশোধিত আইনের খসড়া মন্ত্রিপরিষদে

‘আমি আছি, আমি থাকবো’

মেয়র মুজিবের চাচা জালাল আহমদ কোম্পানী আর নেই

জাতীয়তাবাদী সাইবার দলের সভাপতি আটক

ঐক্যফ্রন্টের ‘ব্যথায়’ বিএনপি, অবহেলায় ২০ দল