সিবিএন:
কক্সবাজারের টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকালে আটকের পর ৩ হাজার ২১৫ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে স্বদেশে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি ও কোস্টগার্ড। এ সময় রোহিঙ্গাদের বহনকরা ২৫টি নৌকা জব্দ করা হয়।

টেকনাফ ২-বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল এসএম আরিফুল ইসলাম সিবিএনকে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলার হোয়াইক্যং, হ্নীলা, সদর ও সাবরাং ইউনিয়নের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকালে ২ হাজার ৬৭৮ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়। পরে মানবিক সহায়তা দিয়ে তাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়।

অন্যদিকে নাফ নদ হয়ে অনুপ্রবেশকালে ৫৩৭ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ আটকের পর মানবিক সহায়তা দিয়ে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানান টেকনাফ কোস্টগার্ডের স্টেশন কমান্ডার লে. জাফর ইমাম সজীব। এসব রোহিঙ্গার মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা বেশি। এ সময় ২৫টি নৌকাও জব্দ করা হয়।

কোস্টগার্ড কর্মকর্তা লেফট্যানেন্ট ফয়সাল জানান, সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত সময়ে রোহিঙ্গা বোঝাই মিয়ানমারের নৌকা গুলো নাফ নদের শাহপরীর দ্বীপ পয়েন্ট দিয়ে ঢুকার চেষ্টা করছিল।

এসময় কোস্ট গার্ড নৌকাগুলো বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশে বাঁধা দিয়ে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়।

তিনি আরো জানান, ছোট বড় প্রতিটি নৌকায় ২০/২৫ জন রোহিঙ্গা ছিল।

উল্লেখ্য, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবারও সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে হাজার হাজার রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করে। এসব রোহিঙ্গা মোচনী, নয়াপাড়া ও লেদা, কুতুপালং ও বালুখালীর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থান করছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •