শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার :

কক্সবাজার সদরের ভারুয়াখালী পশ্চিমপাড়ার বাসিন্দা এফবি রাজু নামের ফিশিং ট্রলার মালিক বজল করিম পটুয়াখালীর মহিপুর মোকামে মাছ বিক্রি করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন। গত ১ সেপ্টেম্বর রাত থেকে তার কোন খোঁজ না পাওয়ায় পরিবারের সদস্যরা চরম উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। নিখোঁজ বজল কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালী ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়ার গ্রামের মমতাজ আহমদের ছেলে।

নিখোঁজ বজল বহদ্দারের ছোট ভাই ছৈয়দ করিম জানান, তার বড় ভাই বজল গত ২৫ আগস্ট শুক্রবার কক্সবাজার ফিশারী ঘাট থেকে ভাইয়ের মালিকানাধীন এফবি রাজু ফিশিং ট্রলার নিয়ে মাছ ধরার জন্য সাগরে রওয়ানা দেয়। সাগরে মাছ শিকার শেষে বিক্রির জন্য পটুয়াখালীর জেলার কলাপাড়া উপজেলাধীন মহিপুর মোকামে ১ সেপ্টেম্বর সকালে নোঙ্গর করে।

তিনি আরো জানান, মহিপুর মোকামে ব্রীজের পশ্চিমপাশে মানছুরা ফিশিং মালিক হাব্বর মুন্সির কাছে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকার মাছ বিক্রি করে। একই দিন ট্রলারটি রসদপত্র নিয়ে সাগরে রওয়ানা দিলেও ভাই বজল বহদ্দার মহিপুর মানছুরা ফিশিং মালিক হাব্বর মুন্সির আড়তে অবস্থান করেন।

নিখোঁজ বজল বহদ্দারের স্ত্রী রাশেদা আকতার জানান, তার স্বামীর সাথে ১ সেপ্টেম্বর রাত ১০ টায় শেষ কথা হয় তার। রাত ১০ পর থেকে মোবাইলে রিং করা হলেও সিরিভ করেনি। কোরবানের ঈদের দিন সকাল ১১টা পর্যন্ত মোবাইল খোলা থাকলেও রিসিভ হয়নি। ওই দিন সকাল ১১টার পর থেকে আর মোবাইলের সংযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। পরে মানছুরা ফিশিং মালিক হাব্বর মুন্সির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি একেক সময় একেক কথা বলেন এবং তার আচরণ রহস্য জনক বলে দাবী করেন স্ত্রী রাশেদা।

তিনি আশংকা করে বলেন, তার স্বামীর কাছে নগদ টাকা ছিলো, তাই মহিপুর মানছুরা ফিশিং মালিক হাব্বর মুন্সিসহ মুহিপুর ও কক্সবাজারের চক্রটি তার স্বামীকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে আটক রেখেছে। স্বামী জীবিত কি মৃত সে বিষয়েও কিছু জানতে পারছে না বলে জানান তিনি। বর্তমানে ৪ সন্তান নিয়ে অত্যন্ত উদ্বেগ ও উৎকন্ঠায় তার জীবন কাটছে বলে জানান রাশেদা।

ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য আলী হোছেন পুগন আলী ওই বজল বহদ্দার নিখোঁজের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করেও তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। কেউ তার সন্ধার পেলে ০১৮২৩২১৯৯৫৮ নাম্বারে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেন। তার আশংকা বজল বহদ্দার অপহরণের শিকার হয়েছেন। এব্যাপারে নিখোঁজ বজলের পরিবার আইগত ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •