আমাদের সময় : কক্সবাজারের উখিয়া সীমান্ত এলাকায় গরু লুটের অভিযোগে মাসুদ আমিন শাকিল (৩০) নামে যুবলীগের এক নেতাকে অবশেষে আটক করেছে পুলিশ।গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় উখিয়ার একরাম মার্কেটের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

আটক মাসুদ আমিন শাকিল উখিয়া উপজেলা যুবলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ফরিয়াপাড়ার রুহুল আমিনের ছেলে।

উখিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মো. কায় কিসলু জানান, উপজেলা ও সীমান্ত জুড়ে নানা অপকর্মের হোতা হিসেবে শাকিল পরিচিতি পেয়েছে।গত বৃহস্পতিবার কোরবানির বাজারে বিক্রির জন্য আনা সরোয়ার নামের এক ব্যক্তির ২২টি গরু লুট করে শাকিল। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেয়ার পর পুলিশ গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে উখিয়া বাজার থেকে আটক করে।

স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, ক্ষতিগ্রস্ত সরোয়ার উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ আলমের ভাতিজা।গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার ২২টি গুরু কিনে বাজারে বিক্রির জন্য আনছিলেন সরোয়ার। এ সময় শাকিল দাপট দেখিয়ে গরু গুলো লুট করে নিয়ে যায়। এছাড়াও মিয়ানমারে নির্যাতিত হয়ে গরু-ছাগলসহ এপারে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের কাছ থেকেও গরুসহ সর্বস্ব লুটের অভিযোগও আছে শাকিলের বিরুদ্ধে।

বিষয়টি স্বীকার করে ওসি কায় কিসলু বলেন, রোহিঙ্গাদের গরু ও অন্যান্য মূল্যবান পণ্য লুটের অভিযোগ পেলেও তা আমলযোগ্য না হওয়ায় পুলিশ ব্যবস্থা নিতে পারেনি। তার অপকর্মের ফিরিস্থি বের করতে তাকে ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক সুকেন্দ চন্দ্র সরকার সুখেন তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উখিয়া যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন বলেন, কোনো ব্যক্তির অপরাধ সংগঠন কাঁধে নেবে না। এছাড়া দলীয় পদ নিয়ে অপরাধ কর্ম করে বেড়ানো কাউকে প্রশ্রয়ও দেবে না সংগঠন। এ কারণে জেলা যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে শিগগিরই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •