রোহিঙ্গাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চলবে : এআরএসএ

অনলাইন ডেস্ক:

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলিমদের নাগরিকত্ব প্রদান এবং অধিকার প্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত লড়াই অব্যাহত থাকবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ‘দ্য আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মি’ (এআরএসএ)-এর মুখপাত্র পরিচয় দেয়া আবদুল্লাহ নামে এক ব্যক্তি।

প্রকাশ্যে যুদ্ধের ঘোষণা দিয়ে ২৪ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাতে রাখাইন রাজ্যে এক সঙ্গে ২৫ থেকে ৩০টি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার দায় স্বীকার করেন তিনি।

আবদুল্লাহ বলেন, স্বপ্রণোদিত হয়ে নয় বরং আত্মরক্ষার স্বার্থে এ হামলা চালানো হয়েছে। খবর এশিয়া টাইমসের।
মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের হিসাব অনুযায়ী ওই হামলায় প্রায় ১০০ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৮০ জন বিদ্রোহী, ১০ পুলিশ সদস্য, একজন সেনা সদস্য ও একজন অভিবাসন কর্মকর্তা। এছাড়া ৬ জন সাধারণ নাগরিক নিহত হন।

আবদু্ল্লাহর দাবি, ‘ওই হামলার দু’দিন আগেই সেনাবাহিনী এআরএসএ’র ঘাঁটিতে আক্রমণে প্রস্তুতি গ্রহণ করে। তাই আত্মরক্ষার্থে আগে থেকে পাল্টা হামলা ছাড়া আমাদের হাতে কোনো বিকল্প পথ ছিল না। ”

তিনি আরও দাবি করেন, উত্তর রাখাইনের তৃতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমান শহর মংডু এবং রাঢ়ড্যাং গ্রামের গ্রামগুলিতে সামরিক হামলা চালিয়ে তরুণ-তরুণীসহ ২৫ জনকে হত্যা করা হয়। তবে এশিয়া টাইমস এই দাবিটি নিশ্চিত করতে পারেনি।

২৮ আগস্ট সোমবার প্রকাশিত একটি সাক্ষাৎকারে এসব দাবি করে মুখপাত্র পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি। হামলার পরদিন ২৫ আগস্ট শুক্রবার হংকংভিত্তিক এশিয়া টাইমস আবদুল্লাহ’র বিশেষ এ সাক্ষাৎকারটি নেয়। তিনি নিজেকে এআরএসএ প্রধান আতাউল্লাহ আবু আম্মার জুনুনির মুখপাত্র হিসেবে দাবি করেন।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

বিশ্বের সর্বাধিক হতদরিদ্র মানুষের বাস ভারতে

সবচেয়ে ‘কিউট’ কুকুরের মৃত্যু

চট্টগ্রামে ইয়াবা নিয়ে রোহিঙ্গা দম্পতিসহ গ্রেপ্তার ৪

মাদকবিরোধী অভিযানের সঙ্গে সমাজে ফেরার সুযোগও দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

টেকনাফে গ্রেপ্তার মাদকের আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

এনজিওতে স্থানীয়দের ছাঁটাই উদ্বেগের

রাখাইনে আরসা’র হামলায় ৬ বিজিপি সদস্য আহত: মিয়ানমার

সিঙ্গাপুরে গেলেন এরশাদ

উখিয়ায় দু’টি প্রতিষ্ঠানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব

লামায় আওয়ামী লীগের আরও ৩ নেতাকর্মীর দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ

কৃষি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

ভূমধ্যসাগরে পৃথক জাহাজডুবিতে নিহত ১৭০ অভিবাসী

স্থানীয় ছাঁটাইয়ের নেপথ্যে

এবার ছেলে সন্তানের মা হলেন টিউলিপ সিদ্দিক

অধ্যাপিকা এথিন রাখাইনকে সাংসদ হিসেবে দেখতে চায় কক্সবাজারবাসী

ভালো মানুষ হয়ে শিক্ষার্থীদের দেশ গঠনের কাজে অংশ নিতে হবে-অধ্যক্ষ ফজলুল করিম

চকরিয়া সরকারি কলেজে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কল্পে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরির দ্রুত সংস্কারের দাবীতে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

নাইক্ষ্যংছড়িতে সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে কলেজের দুই নতুন ভবনের কাজ শুরু

এমপি জাফরের নেতৃত্বে চকরিয়া-পেকুয়ার বিপুল নেতাকর্মীর বিজয় সমাবেশে যোগদান