আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ধর্ষণ মামলায় ভারতের হরিয়ানার তুমুল আলোচিত হিন্দু ধর্মগুরু বাবা রাম রহিমের ২০ বছরের কারাদণ্ডের একদিন পরই আজ (২৯ আগস্ট) আরেক ধর্মগুরু রামপালের বিরুদ্ধে হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হবে।

রামপাল হরিয়ানার বিখ্যাত স্বঘোষিত এক ধর্মগুরু। ২০০৬ সালের একটি খুনের মামলায় তার সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ২০১৪ সালে হরিয়ানার বারোয়ালায় সতলোক আশ্রম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এরআগে তিনি ৪৩ বার আদালতের সমন উপেক্ষা করেন। পরে ২০১৪ সালের নভেম্বরের শুরু থেকেই তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা শুরু করে পুলিশ। কিন্তু দুই সপ্তাহ ধরে আশ্রম ও এর আশপাশে তার সমর্থকদের বাধার কারণে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয়। একপর্যায়ে পুলিশ ও রামপালের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। বাধ্য হয়ে আশ্রমের পানি, বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও খাদ্য সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

১৮ নভেম্বর আশ্রম থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে সময় নারী ও শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে রামপালের বিরুদ্ধে।

এছাড়া পরে আশ্রম থেকে ১ শিশু ও ৫ নারীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। আহত হয় পুলিশ ও রামপালের ভক্ত-সমর্থকদের অন্তত ২০০ জন।

পুলিশ ও আশ্রম সমর্থকদের মধ্যকার ওই সংঘর্ষ ছিল রাজ্য সরকারে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর প্রথম বড় ধরনের সংঘর্ষ। ওই ঘটনার ৩ বছর পর আজ রায় ঘোষণা করা হচ্ছে রামপালের বিরুদ্ধে।

এরআগে গতকাল ২০০২ সালের নিজের আশ্রমে দুই শিষ্যাকে ধর্ষণের অভিযোগের মামলায় সাজা পান হরিয়নার বিখ্যাত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম। তাকে পৃধক দুই ঘটনায় ১০ বছর করে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •