১৯ আগষ্ট বিভিন্ন স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় ‘কলাতলিতে যুবদলনেতা ছিঁড়ে ফেলল শোক দিবসের ব্যানার’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে।

সংবাদে আনিত অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। গভীর রাতে বা কোন সময় আমরা তাহের ভবনও লাইট হাউজ পাড়ায় শোক দিবসের ব্যানার ছেঁড়ার মতো অপকর্মে সম্পৃক্ত নই।

কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্যি যে, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের বরাতে বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে ওই ঘটনায় আমাদের সম্পৃক্ত করা হয়েছে। এতে আমরা রীতিমতো বিস্মিত, হতবাক।

আমরা যেহেতু বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত সে হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ে ১২ নং ওয়ার্ডে আমাদের দলের স্বাভাবিক সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি। একটি রাজনৈতিক দলের কর্মী হিসেবে অন্যদলের ব্যানার ছেঁড়ার শিক্ষা আমাদের দল আমাদের দেয়না। হতে পারে আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রমে ঈর্ষান্বিত হয়ে আমাদের বিরোধী রাজনৈতিক দলের বন্ধুরা অহেতুক আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে। এটা অনেকটা উদুর পিন্ডি বুদর ঘাড়ে। যা কোনভাবে কাম্য নয়।

আমরা উক্ত সংবাদের জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং প্রকাশিত সংবাদে বিভ্রান্তি না হওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান করছি।

সেই সাথে রাজনৈতিক দলের ব্যানার ছেঁড়ার মতো হীন কর্মে লিপ্ত অপরাধীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

 

প্রতিবাদকারীঃ
১। হামিদ উল্লাহ হামিদ সভাপতি, ১২নং ওয়ার্ড যুবদল। ২। আব্দু শুক্কুর আজাদ সহ-সভপতি, জেলা শ্রমিকদল ২। মিনারুল কবির আল আমিন সাধারণ সম্পাদক শহর ছাত্রদল, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •