cbn  

সিবিএন ডেস্ক:
মার্কিন পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেটে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থন নড়বড়ে অবস্থায় পৌঁছেছে; আভাস দিয়েছে সে দেশেরই এক স্বনামধন্য থিংক ট্যাংক। ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান দ্য ব্রুকিংস ইনস্টিটিউশনকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছে, সিনেটের আর ৬ জন সদস্য ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলেই উচ্চকক্ষে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অপসারণে আর কোনও বাধা থাকবে না।
উল্লেখ্য, মার্কিন সংবিধান অনুযায়ী সিনেটে প্রেসিডেন্টের অপসারণের প্রস্তাব তখনই তোলা যাবে, যখন নিম্নকক্ষ তথা প্রতিনিধি পরিষদে তার অভিশংসনের পক্ষে রায় দেবে। সেই প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্প চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে পারেন; এমন কোনও আশঙ্কার কথা বলা হয়নি দ্য ব্রুকিংস ইনস্টিটিউশন-এর পক্ষ থেকে। তারা কেবলই সিনেটে ট্রাম্পের সমর্থন কমে আসার কথা জানিয়েছে।
মার্কিন সংবিধানের ১৯৬৭ সালে প্রণীত এক সংশোধনীতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট যদি তার ক্ষমতা ও দায়িত্ব পালনে অক্ষম হন, তাহলে তাকে অপসারণ করা যাবে। অভিশংসন প্রক্রিয়ার অধীনে, কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের জুডিশিয়ারি কমিটি প্রথমে শুনানি শুরু করবে। এরপর প্রতিনিধি পরিষদের সদস্যরা প্রেসিডেন্টকে অভিশংসন করার প্রশ্নে ভোট দেবেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য প্রেসিডেন্টের অভিশংসনের পক্ষে থাকলে পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে প্রস্তাবটি সিনেটে যাবে। সেখানে প্রেসিডেন্টকে চূড়ান্তভাবে অপসারণের জন্য দুই-তৃতীয়াংশ সিনেটরের ভোট প্রয়োজন হবে।
ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান দ্য ব্রুকিংস ইনস্টিটিউশনের সেন্টার ফর ইফেক্টিভ পাবলিক ম্যানেজমেন্ট’র পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন এলেই কামার্ক। প্রেসিডেন্ট পদে ট্রাম্প মূলত ছয় জন সিনেটরের সমর্থনে টিকে আছেন বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। কামার্কের মতে, অন্তত ১২ জন রিপাবলিকান সিনেটর এখন আর প্রেসিডেন্টকে কোনও ভয় পান না। তারা জানিয়েছেন, প্রয়োজনে প্রেসিডেন্টের বিপক্ষে ভোট দিবেন।
১০০ জনের মার্কিন সিনেটে রিপাবলিকান সদস্যের সংখ্যা ৫২ জন। এতে ৪৬ জন ডেমোক্র্যাট রয়েছেন। সিনেটের অন্য দুই সদস্য স্বতন্ত্র সাংসদ। দুই তৃতীয়াংশ সমর্থন নিশ্চিত করে ট্রাম্পের অভিশংসনে প্রয়োজন হবে ৬৬ জন সিনেটরের ভোট। কামার্কের মতে, রিপাবলিকান দলের ১২ জন বিদ্রোহী সিনেটরের সঙ্গে ৪৮ জন বিরোধী সিনেটর অভিশংসনের পক্ষে অবস্থান নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে অভিশংসনের পক্ষে ইতোমধ্যেই ৬০ জন সিনেটর অবস্থান নিয়েছেন। সে কারণেই তিনি মনে করছেন, এখন ট্রাম্পের অভিশংসনে আর মাত্র ছয় জন সিনেটরের ভোট প্রয়োজন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •