cbn  

সোয়েব সাঈদ, রামু :

কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, ইয়াবা ব্যবসায়িদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবো। সমাজকে অপরাধমুক্ত করতে হলে সর্বপ্রথম মাদক প্রতিরোধ করতে হবে। চুরি-ডাকাতি বন্ধ করতে হলেও নিজের সন্তানদের মাদক থেকে দূরে রাখতে হবে। কারন ইয়াবা, মদ, গাঁজা সেবনের জন্য যে ছেলেরা আজ বাপের টাকা খরচ করছে, সে অন্যদিন বাপের টাকা না পেলে পরের বসত বাড়ি, দোকান-পাট ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে চুরি-ডাকাতি সংগঠিত করতে পারে। আইনশৃংখলা বাহিনী সবার ঘরে গিয়ে সন্তানদের পাহারা দিতে পারবে না। সন্তানদের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রধান দায়িত্ব বাবা-মা, পরিবার-পরিজনের। এখানে কোন অপরাধমূলক কর্মকান্ড হলে এলাকাবাসী তার দায় এড়াতে পারবে না। তবে পুলিশ যেন কোন নিরাপরাধ ব্যক্তিকে হয়রানি না করে সে ব্যাপারে তিনি সজাগ ভূমিকা পালন করবেন।

সাংসদ কমল বুধবার (১৬ আগষ্ট) সন্ধ্যায় রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি চা বাগান বাজারে চুরি-ডাকাতি, মাদকের প্রসার বন্ধ ও অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধে স্থানীয় জনতার সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

স্থানীয় প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে আয়োজিত মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্ত ভূষন বড়ুয়া, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, রামু কেন্দ্রিয় সীমা বিহারের সাধারণ সম্পাদক তরুন বড়ুয়া, রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়–য়া, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ মো. আবদু শুক্কুর, যুবলীগ নেতা নবীউল হক আরকান, মাসুদুর রহমান ও ওসমান গনি, জোয়ারিয়ানালা ইউপি সদস্য জসিমুল ইসলাম, স্থানীয় সমাজসেবক ফরিদুল আলম, চা বাগান বাজার কমিটির সভাপতি ছাবের আহমদ, সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আজিজুল হক, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের আহবায়ক একেরামুল হাসান ইয়াছিন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনতা সাংসদ কমলের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং উত্তর মিঠাছড়ি ও আশপাশের একাটিকে মাদক ও অপরাধমুক্ত করতে সাংসদ কমল ও আইনশৃংখলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

জবাবে সাংসদ কমল বলেন, জোয়ারিয়ানালার উত্তর মিঠাছড়ির বৌদ্ধ বিহারগুলো দেখতে প্রতিদিন দেশ-বিদেশের পর্যটকরা এখানে ছুটে আসছেন। তাই এ এলাকাটিকে আরো সুন্দর ও অপরাধমুক্ত করতে করণীয় সকল উদ্যোগ নেয়া হবে। এজন্য এলাকার সব মানুষের অংশগ্রহনে আগামী কোরবানীর ঈদের দুদিন পর বৃহৎ আয়োজনে আরো একটি মতবিনিময় সভা করা হবে। আলোচনা সভায় রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ি এবং সর্বস্তুরের শত শত জনতা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •