স্বামীকে পরকিয়া প্রেমে বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম

শফিউল আলম, চকরিয়া :
চকরিয়ায় স্বামীকে পরকিয়া প্রেমে বাধা দেওয়ায় গৃহবধু হামিদা বেগম (২৫) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে পাষন্ড স্বামী ও শাশুড়ী। উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বৃন্দাবনখীল গ্রামে গত শুক্রবার সকাল ১১ টার দিকে ঘটেছে মর্মান্তিক এ ঘটনা। গৃহবধু হামিদা বেগম একই এলাকার আবু ছৈয়দের মেয়ে। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সর্বশেষ গতকাল ১২ আগস্ট বিকেলে আশংখাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়েছে।
অভিযোগে ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বৃন্দাবনখীল গ্রামের মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে শামশুল আলম (৩০) এর সাথে ২০০৯ সালে বিয়ে হয় একই এলাকার আবু ছৈয়দের মেয়ে হামিদা বেগম (২৫) এর। সুন্দরভাবে চলে তাদের দু’জনের সংসার। সংসারে ৬ বছরের একটি পুত্র সন্তান ও ৪ বছরের একটি কন্যা রয়েছে। বিয়ের কয়েক বছরের মাথায় স্বামী শামশুল আলম মোবাইল ফোনের সর্ম্পকে চট্টগ্রামের একটি মেয়ের সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। স্বামীর পরকিয়ায় স্ত্রী বাধা প্রদান করলে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে স্বামী। শুরু হয় স্ত্রীর উপর নির্যাতনের স্ট্রীম রোলার। স্ত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে বৃন্দাবনখীল গ্রামের পাড়ার সর্দার আমির হোসেনসহ স্থানীয়রা স্বামী পরিবারকে সামাজিক ভাবে কয়েকবার শালিসী বৈঠকেও বসান। সর্বশেষ গত ১১ আগস্ট সকাল ১১টার দিকে পাষন্ড স্বামী শামসুল আলম ও শাশুড়ী জগুনা বেগম নির্যাতিত অসহায় স্ত্রী হামিদা বেগমকে বেধম মারধর করে খালি ষ্টাম্পে স্বাক্ষার করতে বলে। হামিদা বেগম খালি স্ট্যামে স্বাক্ষর না করায় স্বামী ও শাশুড়ীসহ পরিবারের সদস্যরা ধারালো অস্ত্র উপর্যপুরি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এক পর্যায়ে মারা গেছে মনে করে বাড়ির পাশ^বর্তী জঙ্গলের ভেতরে ফেলে দেয়। এসময় স্থানীয় প্রতিবেশীরা গৃহবধু হামিদা বেগমকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতাল ভর্তি করা। বর্তমানে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে বলে জানিয়েছেন গৃহবধু হামিদা বেগমের পিতার পরিবারের লোকজন। শাশুড়ী বাড়ি পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসার নূন্যতম খোজ খবর নেওয়ার জন্যও আসেনি বলে জানান। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় হারবাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম মিরান। তিনি জানিয়েছেন, আহত রোগিকে হাসপাতালে নিয়ে আগে চিকিৎসা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

দুবাই কনস্যুলেটে গণহত্যা দিবস পালিত

ভাইরাল সেই ছবি নিয়ে যা বললেন আবুল কালাম চেয়ারম্যান …..

পিইসিতে মেধা তালিকায় দুইজনসহ কক্সন মাল্টিমিডিয়া স্কুলের ঈর্ষণীয় সাফল্য

কক্সবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হলেন রফিকুল ইসলাম খান

শহীদ এটিএম জাফরের পক্ষে স্বাধীনতা পদক গ্রহণ করলেন ছোট ভাই শাহ আলম

জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গণহত্যা দিবসের আলোচনা সভা

এপ্রিলে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

সদর উপজেলায় প্রার্থীতা ফিরে পেলেন নুরুল আবছার

ইকবাল বদরী : একজন বিরল সমাজ সেবক

জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ স্কাউট শিক্ষক কোরক বিদ্যাপীঠের আনচারুল করিম

সাগরপাড়ের শিশুদের নিরাপত্তায় পদক্ষেপ নেয়া হবে

সোমবার স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন কক্সবাজারের শহীদ জাফর আলম

ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুতের সাব জোনাল অফিসকে জোনালে উন্নতিকরন

আমিরাতে রিহ্যাব ক্ষুদে আঁকিয়ে সিরিজের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা

দল হিসেবে জামায়াতের বিচার: সংশোধিত আইনের খসড়া মন্ত্রিপরিষদে

‘আমি আছি, আমি থাকবো’

মেয়র মুজিবের চাচা জালাল আহমদ কোম্পানী আর নেই

জাতীয়তাবাদী সাইবার দলের সভাপতি আটক

ঐক্যফ্রন্টের ‘ব্যথায়’ বিএনপি, অবহেলায় ২০ দল

আজ ১ মিনিট নিঃশব্দ থাকবে বাংলাদেশ