টিসি মোহরা পদে নিয়োগে অনিয়ম, নকলনবিশদের মাঝে হতাশা

জিকির উল্লাহ জিকু:

বেশ কিছুদিন ধরে জেলার নিবন্ধন অফিসের (সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস) নকলনবশিদের মাঝে হতাশ, ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাদের অভিযোগ নকলনবিশদের নিয়ম নীতি বা ম্যানুয়েল থাকলেও মান হচ্ছে না শুণ্য পদে পদায়নে। এই ক্ষোভ সৃষ্টি কারণে জানা যায়, গত ২৭ জুলাই পেকুয়া টি.সি মোহরা পদে সুমন কান্তি দে কে অতালিকাভুক্ত এবং জুনিয়র নকলনবিশ হলেও জেলা রেজিষ্টার অফিস টি.সি মোহরা পদে নিয়োগ দেয়ায়।

জেলার এক নকলনবিশ নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন-আমরা নাম মাত্র বেতনে চাকরি করে আসছি কখন একটা শুণ্য পদে পদায়ন হব। যদি নীতিমালা ও জ্যৈষ্ঠতার ভিত্তিতে করা না হয় তাহলে বিশৃঙখলা যেমন হবে তেমনি কাজেও গতি আসবে না।

নকলনবিশ সমিতির এক সূত্রে জানা যায়, জেলায় তালিকাভুক্ত নকলনবিশ আছেন ১০৬জন। প্রতি উপজেলায় ৫টি করে শূণ্য পদে মোট ৪০টি পদ এর মধ্যে প্রতি উপজেলায় সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে একজন টিসি মোহরা বাকি পদ গুলো আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে পূরণ করা হয়।

অভিযোগে জানা যায়, অনৈতিক কৌশলে জ্যৈষ্ঠতা লঙ্গন করে পেকুয়া টিসি মোহরা পদ ভাগিয়ে নিয়েছেন সুমন কান্তি দে এবং জেলা অফিস তাকে সাহায্য করেছে। এই শুণ্য পদের নিয়োগে কোন সার্কুলেশন বা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়নি বেশ কয়েকটি উপজেলার নকলনবিশদের অভিযোগ। যুগযুগ ধরে আসা নিয়ম বা স্পষ্ট নীতি মালায় উল্লেখ থাকলেও মানা হয়নি।

এই বিষয়ে কথা হয় জেলা নকলনবিশ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিনার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের সাথে তিনি বলেন, পেকুয়া টিসি মোহরা পদের নিয়োগের বিষয়টি নিয়োগের আগ পর্যন্ত আমাদের জানা ছিলনা পরে জানছি। নকলনবিশদের পদায়নে কোন নিয়ম-নীতিমালা আছে কিনা প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন-নীতি মালা আছে এবং যুগ যুগ ধরে এটি বাস্তবায়ন হয়েও আসছে।

তিনি আরো বলেন পদায়নে জ্যৈষ্ঠতার ভিত্তিতে করতে হবে এমন স্পষ্ট বিধানও আছে এবং নকলনবিশ ছাড়া বাহিরের কোন লোক নিয়োগের বিধান নাই বলেও জানান।নকলনবিশ সমিতির অফিস সূত্রে জানা যায়, তালিকা ভুক্ত ১০৬জন নকলনবিশদের মাঝে সুমন কান্তিদে কত নম্বর সদস্য কেউ তথ্য দিতে পারেনি তবে সমিতির সম্পাদক সূত্রে জানা যায় তিনি নিশ্চিত জুনিয়ন নকলনবিশ।

নকলনবিশ সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি জয়নালের কাছে জানতে চাইলে মুঠোফোনে তিনিও বলেন, নকলনবিশদের তালিকা থেকেই জ্যৈষ্ঠতার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হয় বলে মত ব্যক্ত করেন।এক তথ্যে জানা যায়, গত ১১/০৬/২০১৭ ইং তারিখের উপ-সচিব বিলকিস জাহান রিমি স্বাক্ষরিত পত্রে ‘নিবন্ধন পরিদপ্তরকে‘ অধিদপ্তরে রুপান্তরের পর নিয়োগ সংক্রান্ত শর্তরোপ করে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। তাতে উল্লেখ আছে অফিস সহায়ক (এম.এল.এস.এস), নৈশ প্রহরী, ঝাড়–দার আউটসোর্সিং পদ উল্লেখ করে শুণ্য যেকোন পদে নিয়োগের বিষয়ে প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির অনুমোদন গ্রহণ এবং পদ সৃজনে প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর অনুমোদন গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রেও যথাযথ নিয়ম প্রয়োগ হয়নি বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন অভিযুক্তরা।

এই নিয়োগের বিষয়ে ও তালিকার জ্যৈষ্ঠতার ভিত্তিতে নিয়োগের বিষয়ে মুঠোফোনে কথা হলে জেলা রেজিষ্টার রায়হান মন্ডল বলেন, উক্ত পদে যে কাউকে নিয়োগ দেয়া যায়, জ্যৈষ্ঠতার কোন নীতিমালা নাই। তালিকাভুক্ত হতে হয়না এবং যথানিয়মে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজার কলেজ বাংলা বিভাগের শিক্ষা সফর : ব্যক্তিগত অনুভূতি

কক্সবাজারে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নতুন সভাকক্ষ উদ্বোধন

যুবসমাজের আনন্দায়োজন: কিছু ভাবনা , কিছু কথা…

সর্বক্ষেত্রে আল্লাহর নির্দেশ মেনে চলার নাম ইবাদত

উখিয়ায় উপজেলা নির্বাচনী হাওয়া : মাঠে বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলম চৌধুরী

চাকরি প্রত্যাশিদের তালিকা তৈরি কার্যক্রমের উদ্বোধন করল ‘জাগো উখিয়া’

শহীদ জিয়ার জন্মবার্ষিকীতে সুবিধাবঞ্চিত ও দুস্থদের পাশে চ.বি ছাত্রদল

মালয়েশিয়া প্রবাসী যুবককে মুঠোফোনে হুমকির অভিযোগ

দূর্গম পাহাড়ে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হলো ১০ কি:মি: রাস্তা

পেকুয়ায় ইমামকে কুপিয়ে আহত

উখিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ জামিনে মুক্ত

মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন’র পিএইচডি ডিগ্রী লাভ

কক্সবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নতুন নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল কাদের গণি

শেখ হাসিনার বদান্যতায় মাথা গোজার ঠাঁই পেল গৃহহীন ১২৬ পরিবার

বিশ্বের সর্বাধিক হতদরিদ্র মানুষের বাস ভারতে

সবচেয়ে ‘কিউট’ কুকুরের মৃত্যু

চট্টগ্রামে ইয়াবা নিয়ে রোহিঙ্গা দম্পতিসহ গ্রেপ্তার ৪

মাদকবিরোধী অভিযানের সঙ্গে সমাজে ফেরার সুযোগও দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

টেকনাফে গ্রেপ্তার মাদকের আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

এনজিওতে স্থানীয়দের ছাঁটাই উদ্বেগের