জালাল আহমদ, ঢাবি থেকে:
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রতিবছর শোকের মাস আগস্ট এলে সৌজন্য ব্যানার, সৌজন্য বিলবোর্ডের অভাব হয় না। অভাব শুধু সৌজন্য রাজনীতির। কিছু নেতাকর্মী ব্যানার ও বিলবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি ছোট করে দিয়ে প্রচারের জন্য নিজের ছবি কে বড় করে দেয়। এতে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সৌজন্যতা এবং শ্রদ্ধা প্রকাশ পায় না ।

তিনি শোকের মাস আগস্টে বঙ্গবন্ধুর নামে কেউ চাঁদাবাজি করলে ধানমন্ডিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে খবর দেয়ার আহবান জানান। তিনি সুশীল সমাজকে এক হাত দেখে নিয়ে বলেন,যারা বলে দুই নেত্রী এক সাথে বসলে দেশের সব সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে, তারা বোকার স্বর্গে বসবাস করে। তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কে উদ্দেশ্য করে বলেন, আলোচনা চাইলে ১৫ আগস্ট ভুয়া জন্ম দিনে কেক কাটা বন্ধ করুন।

তিনি আরো বলেন,বঙ্গবন্ধু কে হত্যার পর যারা খুনিদের কে বিদেশী রাষ্ট্র দূত অফিসে গুরুতপূর্ণ পদে চাকরি দিয়েছেন তাদের কে আমরা চিনি। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় শেখ হাসিনা যেমন এক নাম্বার টার্গেট ছিল,এখনো আছেন।বিএন পি আওয়ামীলীগের চেয়ে শেখ হাসিনা কে বেশী ভয়। বঙ্গবন্ধু সমাজ কল্যাণ পরিষদের সভাপতি ড. শামশুল হক ভুঁইয়া এমপির সভা পতিত্বে সংগঠনটি কর্তৃক টিএসসির অডিটেরিয়ামে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান, ঢাবির ভিসি অধ্যাপক ড.আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাহালুল মজনুন চুন্নু, ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ , সাধারণ সম্পাদক এস.এম.জাকির হোসেন,ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা সাইদ আনোয়ার সিজার,মো: রিপন মিয়া প্রমুখ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •