ডেস্ক নিউজ:

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতা মুমিনুল হক চৌধুরীর মেয়ে ও আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভীর স্ত্রী রিজিয়া রেজা চৌধুরীর সাথে নিজের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সমালোচিত হওয়ার পর নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। পাশাপাশি গণমাধ্যমের ভূমিকা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘উনি আমাদের এমপির স্ত্রী। এমপি সাহেব এসেছেন আমার সাথে দেখা করতে। আমি কি তার স্ত্রীকে বাদ দিয়ে তার সাথে ছবি তুলব? আমি কি তাকে বলব যে, ‘আপনি সরে যান? তিনি কি জামায়াতের সদস্য?’

রোববার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

ক্ষুব্ধ কাদের বলেন, একেক সময় এক-একটা চলবে আর কি? শুরু হয়েছে ওই হেফাজত নিয়ে। হেফাজতের ঝড় এখন নেই। এখন আপনারা আবার শুরু করেছেন একজন এমপির স্ত্রীকে নিয়ে। এটার পর আবার আরেকটা শুরু হবে। এগুলোর বাস্তবতা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখতে হবে।

রিজিয়া মহিলা আওয়ামী লীগের পদ পাওয়ার পর সৃষ্ট সমালোচনার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘নদভী সাহেব আজ প্রায় চার বছর ধরে আওয়ামী লীগের এমপি। এই চার বছর কিন্তু তাকে নিয়ে কোন কথা হয়নি। তার স্ত্রী যদি জামায়াত নেতার সন্তান হন, তাহলে চার বছর ধরে তো এই সন্তানের স্বামী হচ্ছেন আমাদের এমপি। এই এমপিকে নিয়ে এতদিন কেউ কোন কথা বলেনি, রিজিয়ার বিষয়েও কেউ কোন বিতর্ক সৃষ্টি করেনি।’

কাদের বলেন, ‘এখন তো রিজিয়ার প্রশ্ন; তার সন্তানেরও আওয়ামী লীগ করার অধিকার থাকবে না? তার হাজবেন্ডের সাথে সে আওয়ামী লীগ করতে পারবে না? তার বাবার সাথে তার কোন সম্পর্ক নেই। এই অবস্থাকে আপনারা কি বলবেন? ’

এর আগে জেলা কমিটি থেকে রিজিয়াকে বাদ দেওয়ার সংবাদকে ‘মিথ্যা কথা’ বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘রিজিয়া জামায়াতের কর্মী না। সে আওয়ামী লীগের কাজ করছে।’

রিজিয়া ছাত্রী সংস্থার নেত্রী ছিলেন- এমন অভিযোগের বিষয়ে কাদের বলেন, দিস ইজ নট ফ্যাক্ট। সে তো বিশ্ববিদ্যালয়েই পড়ে নাই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •