“যৌতুক প্রথা ও বাংলাদেশ”

-হুরে জন্নাত

যৌতুক প্রথা একটি জঘন্য সামাজিক ব্যাধি। প্রতিদিন সংবাদপত্রের পাতা খুললেই যৌতুকের কারণে অনেক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে এই সংবাদ চোখে পড়ে। এই প্রথা প্রাচীনকাল থেকে যুগ যুগ ধরে চলে আসছে। যৌতুক হলো বিবাহের সময় বরকে উপহারাদি প্রদান করা। আগেকার দিনে হিন্দু সমাজে এই প্রথা বেশী প্রচলিত ছিল। প্রাচীনকালে হিন্দু সমাজে ৯Ñ১০ বছরের মধ্যে কন্যা বিয়ে না দিলে কন্যাদায়গ্রস্ত পিতাকে সমাজচ্যুত করা হতো। তাই তারা অর্থের বিনিময়ে হলেও কন্যাপাত্রস্থ করতো। একবিংশ শতাব্দীতেও রয়ে গেছে বিবাহে যৌতুক বা উপঢোকন দেয়ার মতো জঘন্য প্রথা।

বাংলাদেশে নিম্নবিত্ত লোকদের মধ্যে যৌতুক প্রথা বেশি প্রচলিত। বেকারত্ব এবং অর্থনৈতিক নিরাপত্তার অভাবের কারণে মানুষ এই প্রথার দিকে বেশি বাধিত হয়। যে সমস্ত নারীদের শিক্ষা ও অর্থনৈতিক স্বাধীনতা নেই তারা বেশী যৌতুকের শিকার হয়। অধিকাংশ পিতা তার ছেলেকে বিয়ে করানোর ব্যাপারে যৌতুক ছাড়া বিয়ের কথা চিন্তাই করতে পারে না। দেশে এ যাবৎ যেসব গৃহবধু ও কুমারী মেয়ে আত্মহত্যা করেছে তার শতকরা ৯০ ভাগের পেছনে কারণ হলো যৌতুক। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করলে এবং আমাদের সমাজের মেয়েরা শিক্ষিত হয়ে আত্মনির্ভরশীল হলে এ জঘন্য প্রথা কমে যাবে বলে আমি মনে করি। কোনো ধর্মই অসামাজিক নীতিকে স্বীকৃতি দেয় না। ইসলাম ধর্মও নারীকে মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করেছে, যৌতুক প্রথাকে স্বীকৃতি দেয়নি। তাই সমাজে যৌতুকের বিরুদ্ধে ধর্মীয় সচেতনা বৃদ্ধি করতে হবে। পত্র-পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সরকারের পক্ষ থেকে যৌতুকের কুফল সম্পর্কে প্রচারণা চালালে আস্তে আস্তে এ প্রথার অবসান ঘটবে। বাংলাদেশের নারী সমাজ এখন শিক্ষার দিক দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেয়েদের শিক্ষার ব্যাপারে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করেছেন। দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রে নারীরা সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। এই মেয়ে/ নারীরা তো কারো মা, কারো বোন, কারো ফুফু বা কারো খালা। তাই, আসুন আমরা সবাই যৌতুকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলি, নারীদের মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করি।

হুরে জন্নাত, প্রধান শিক্ষক,পালাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চকরিয়া পৌরসভা, চকরিয়া, কক্সবাজার।

cbn কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এ প্রকাশিত কোন সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।-কক্সবাজার নিউজ ডটকম  

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারসহ দেশের ৭৪ উপজেলায় তৈরি হচ্ছে নতুন আশ্রয়কেন্দ্র

দাবি মেনে নিয়ে ক্রিকেট সংকটের অবসান ঘটাল বিসিবি

অপকর্মে আ’লীগের সুনাম ভূলুন্ডিত হয় এমন নেতৃত্বের প্রয়োজন নেই : এড. সিরাজুল মোস্তফা

চকরিয়ায় অবৈধ নাচ গানের আসর গুড়িয়ে দিলেন পুলিশ

চকরিয়ায় অবৈধ মেলামেশা কালে জনতার হাতে আটক ২

ডুলাহাজারায় ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশে দিল জনতা

শিলার মাথায় মুকুট পরিয়ে দিলেন বলিউডের সুস্মিতা সেন

কক্সবাজারে মাধ্যমিক ও নিম্ন মাধ্যমিকে ২৪ টি বিদ্যালয় এমপিও ভুক্ত

মহেশখালী ডিগ্রি কলেজ ও কুতুবদিয়া বিএম কলেজ এমপিও ভুক্ত হলো

কক্সবাজারে ২৯ মাদ্রাসা এমপিও ভুক্ত

কক্সবাজার পৌরসভা ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন ২৯ অক্টোবর

মহেশখালীর ১১ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত

কুতুবদিয়া মুজিব কিল্লা পাড়া বঙ্গবন্ধু সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

ঈদগাঁহ’কে থানা : এমপি কমলের উদ্যোগে শোকরানা সভা ও মেজবান নভেম্বরে

ইসলামের বিরুদ্ধে কটূক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিন : লুৎফুর রহমান কাজল

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ১১

খরুলিয়ায় জমি দখলের চেষ্টা, রাত জেগে পাহারা নারীদের

মওলানার কাঁধে পুরোহিতের ঘুমানোর ছবি ফেসবুকে ভাইরাল

গোমাতলী জরাজীর্ণ ব্রীজ পরিদর্শনে উপজেলা চেয়ারম্যান জুয়েল

চারদিকে সহিংসতা ছড়াচ্ছে কেন?